সব খবর সবার আগে।

ছন্দে ফিরেছে করোনার আঁতুড়ঘর! কানায় কানায় ভর্তি ডান্স ফ্লোর! উত্তাপ ছড়াচ্ছে প্রেমিক-প্রেমিকার ঘনিষ্ঠতা!

চীনের উহান (Wuhan) থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস (covid-19)-এর জেরে বিশ্বজুড়ে প্রাণ হারিয়েছে কয়েক লক্ষ মানুষ। বিপর্যস্ত হয়ে গেছে বিশ্বের মানুষের জনজীবন। ছন্দ হারিয়েছে মানুষের সাধারণ জীবনযাত্রা। এখন‌ও এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে চলেছে ভারত- আমেরিকার মত দেশ।

 

ইউরোপে ফের নতুন করে ঢেউ উঠেছে মহামারির (pandemic)। গোটা বিশ্ব যখন কাহিল হয়ে পড়েছে লড়তে লড়তে তখনই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছে চীনের উহান। করোনার আঁতুড়ঘর বলেই যে প্রদেশের পরিচিতি। গত মাসেই সেখানকার এক পুল পার্টির ছবি ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এই ছবির সত্যতাকে নিশ্চিত করে সূত্রের খবর ওই জায়গার নাইটলাইফ (nightlife) অতিমারী পূর্ববর্তী অবস্থায় ফিরে এসেছে। সেখানকার নাইটক্লাব, ডিস্কোথেকগুলির ছবি দেখলে অন্যদেশের মানুষের মনে হিংসের উদ্রেক হতেই পারে –

জিনপিং সরকার উহান শহর পুরোপুরি করোনা মুক্ত বলে ঘোষণা করেছে। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে গত মে মাসের পর থেকে উহানে গোষ্ঠী সংক্রমণের আর কোনও ঘটনা ঘটেনি। গত ৩৩ দিন একটিও সংক্রমণের ঘটনা নথিবদ্ধ হয়নি। তাই বাসিন্দাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

চলতি মাসের শুরু থেকেই চীনে খুলেছে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। আর এবার নৈশজীবনও ফিরে এল উহানে। যুব সম্প্রদায়কে আগের মতোই একসঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে চলাফেরা করতে দেখা যাচ্ছে, বেশিরভাগই মাস্ক-হীন। খুলে গিয়েছে নাইটক্লাব, ডিস্কো বার, বিয়ার বার, পাবগুলি। কেউ কেউ সেইসব বিনোদনের জায়গাগুলিতে মাস্ক পরে আসছেন, তবে তাদের সংখ্যা হাতেগোনা। তবে, রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য মাস্ক-সামাজিক দূরত্ব – সব বিধি-নিষেধই উধাও হয়ে যাচ্ছে।

দীর্ঘ কয়েকমাসের লকডাউনের (lockdown) বাধামুক্ত হওয়ার পর উহান এখন লাগামছাড়া।গোটা বিশ্ব যখন একেবারে প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া ঘরে বসে থাকতে বাধ্য, উহানে সেখানে এখন ইচ্ছামতো পার্টি করায় স্বাধীনতা। কয়েক মাসের বাধার পর প্রেমিক-প্রেমিকাদের ঘনিষ্ঠতাও উষ্ণতা ছড়াচ্ছে।

তবে ওখানে ছবিটা বদলালেও বহির্বিশ্বের ছবিটা অত্যন্ত অন্ধকার। যেখানে মৃত্যু-মিছিল আছে। হাহাকার আছে। অসহায় মানুষকে হারানোর কান্না আছে। আছে চাকরি হারানো। আছে জীবনের প্রতিটা মুহূর্তে শঙ্কাকে আঁকড়ে বেঁচে থাকা। আর সেই সঙ্গে আছে এই ভাইরাসকে হারিয়ে পুনরায় পূর্ববর্তী জীবনে ফিরে যাওয়ার প্রবল ইচ্ছা।

You might also like
Comments
Loading...
Share