কলকাতা

জোকা ইএসআই থেকে বেরোনোর সময় পার্থকে জুতো ছুঁড়ে মারলেন মহিলা, ‘রাগ ছিল, জুতো মেরে শান্তি পেয়েছি’, বললেন মহিলা

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির (SSC Scam Case) জেরে ইডি-র (Enforcement Directorate) হাতে গ্রেফতার হয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) ও তাঁর ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায় (Arpita Mukherjee)। আজ জোকা ইএসআই-তে (Joka ESI) তাদের নিয়ে যাওয়া শারীরিক পরীক্ষার জন্য। এদিন হাসপাতাল থেকে বেরোনোর সময় পার্থকে তাক করে জুতো (shoe) ছুঁড়ে মারেন এক মহিলা। সেই জুতো পার্থর গায়ে লাগেনি বলে জানা গিয়েছে। তবে এমন আকস্মিক ঘটনায় হাসপাতাল চত্বরে বেশ শোরগোল পড়ে যায়।

এসএসসি দুর্নীতির জেরে গ্রেফতার হওয়া পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে আদালতের নির্দেশেই দু’দিন অন্তর স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আজ, মঙ্গলবারও সেই কারণে জোকার ইএসআই-তে নিয়ে যাওয়া হয় তাদের। সেখান থেকে বেরোনোর সময়ই এক মহিলা পার্থর দিকে তাক করে জুতো ছুঁড়ে মারেন। যদিও সেই জুতো পার্থর গায়ে লাগেনি বলেই জানা যাচ্ছে।

পার্থকে ছুঁড়ে মারা সেই জুতো

সূত্রের খবর, ওই মহিলার নাম শুভ্রা ঘোড়ুই। আমতলার বাসিন্দা শুভ্রাদেবী একজন সাধারণ রোগী। সংবাদমাধ্যমের সামনে শুভ্রাদেবী বেশি কিছু বলতে চাননি। তাঁর বক্তব্য, “ওর উপর আমার রাগ ছিল, জুতো মেরে শান্তি পেয়েছি। আরও ভাল লাগত জুতোটা যদি ওর টাকে লাগত। মালা দিয়ে বরণ করলে কি ভাল লাগত আপনাদের”?

শুভ্রাদেবী আরও বলেন, “এত মানুষের টাকা মেরে, চাকরি মেরে ফ্ল্যাট-বাড়ি কিনেছেন। আবার তাকে এসি গাড়ি করে এত খাতির করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে”।

প্রসঙ্গত, ৪৮ ঘণ্টা পরপরই পার্থ ও অর্পিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। দুই হেভিওয়েট হাসপাতালে যাওয়ায় নিরাপত্তা থাকছে কড়া। এর জেরে সাধারণ মানুষ যারা হাসপাতালের আউটডোরে দেখাতে আসছেন, তারা বেশ সমস্যার মুখে পড়ছেন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে তাদের। সেই কারণেই শুভ্রাদেবীর রাগের এই বহিঃপ্রকাশ।

একথা তিনি নিজের মুখেই সংবাদমাধ্যমের সামনে স্বীকার করে নেন। এই ঘটনা ঘটানোর পর যদিও বেশিক্ষণ সেখানে থাকেন নি শুভ্রাদেবী। নিজের কথা বলার পরই তিনি বলেন, “আমাকে এবার ছেড়ে দিন”। এই বলে খালি পায়েই বাড়ির উদ্দেশে বেরিয়ে যান শুভ্রাদেবী।

Related Articles

Back to top button