কলকাতা

নয়া পালক রাজ্যের মুকুটে! দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তালিকায় স্থান পেল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, ‘গর্বিত’, টুইট মুখ্যমন্ত্রীর

আরও এক নতুন পালক যোগ হল রাজ্যের মুকুটে। দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে স্থান পেল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সাফল্যে ‘গর্বিত’ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। টুইট করে সেকথা নিজেই জানান তিনি।

দেশজুড়ে নানান বিশ্ববিদ্যালয়গুলি নিয়ে একটি সমীক্ষা চালায় এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম। সেই সমীক্ষায় দেশের এরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলির যে তালিকা প্রকাশ পেয়েছে, তাতে ষষ্ঠ স্থানে উঠে এসেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম। রাজ্যের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে শীর্ষ স্থান পেয়েছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়।

এর আগে জুলাই মাসে উৎকর্ষতার বিচারে দেশের বিশ্ববিদ্যালয় ও  কলেজগুলির একটি তালিকা প্রকাশ করে ন্যাশানাল ইনস্টিটিউট ব়্যাঙ্কিং ফ্রেমওয়ার্ক। স্রেফ কলকাতায় বিশ্ববিদ্য়ালয় নয়, সেই তালিকায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়েরও নাম ছিল। চতুর্থ স্থানে যাদবপুর, আর অষ্টম স্থানে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। টুইট করে শহরের দুই বিশ্ববিদ্যালয়কে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, এই বছর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন পরীক্ষার দাবী জানিয়ে প্রতিবাদ করে পড়ুয়ারা। তাদের দাবী ছিল যে রাজ্যের বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পরীক্ষা হচ্ছে, তাহলে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন অফলাইনে পরীক্ষা হবে। তারা এও জানায় যে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় সিলেবাস শেষ না হওয়ার কারণে ওয়াটেজ মার্কস দিচ্ছে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫০ শতাংশ সিলেবাস শেষ হয়নি। তাহলে কেন গোটা সিলেবাসে পরীক্ষা হবে?

এই নিয়ে একটি মামলাও হয় আর তা গড়ায় কলকাতা হাইকোর্ট পর্যন্ত। তবে আদালতের তরফে জানানো হয় যে বিশ্ববিদ্যালয় যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তেমনই হবে। অর্থাৎ অফলাইনে পরীক্ষার দিকেই সায় দেয় আদালত। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা সংক্রান্ত তিনটি আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন পড়ুয়ারা। প্রথম, পরীক্ষা নিতে হবে পুরো সিলেবাস শেষ করে। দ্বিতীয়, সিলেবাসের পরিমাণ কমাতে হবে। তৃতীয়, পরীক্ষা নিতে হবে হোম সেন্টারেই। তিনটি আবেদনই খারিজ হয়ে যায়।

Related Articles

Back to top button