সব খবর সবার আগে।

আবারও দিলীপ নিশানায় তৃণমূল! এঁরা ভিআইপি-কে বাঁচাতে পারে না সাধারণ মানুষ কি বাঁচাবে?উক্তি তাঁর

করোনা আবহে শাসক-বিরোধী তরজা লেগেই রয়েছে। কারোর মৃত্যুতেও তা বন্ধ হওয়ার নয়। আজ করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে শাসকদলের বিধায়ক তমোনাশ ঘোষের। আর তার মৃত্যুর পরই ফের একবার পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্যব্যবস্থার কড়া সমালোচনায় সরব রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তমোনাশবাবুর মৃত্যুতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থার হাল কতটা করুণ। চেষ্টা করেও একজন ভিআইপিকে বাঁচাতে পারে না সরকার। তাহলে বুঝুন সাধারণ মানুষের হাল কী।

করোনা আক্রান্ত হওয়ার প্রায় ১ মাস পর বুধবার মৃত্যু হয়েছে ফলতার বিধায়ক তথা তৃণমূলের কোষাধ্যক্ষ তমোনাশ ঘোষের। বুধবার সকালে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ার বাসিন্দা তমোনাশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একান্তই আস্থাভাজন ছিলেন। তাঁকে সুস্থ করে তুলতে সরকারের তরফেও চেষ্টার কোনও খামতি রাখা হয়নি। তবুও বাঁচানো গেল না তমোনাশকে। হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, সোমবার থেকে তমোনাশবাবুর অবস্থা সংকটজনক হয়। একের একে তাঁর বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছিল। বুধবার সকালে মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

বুধবার বিজেপির রাজ্য সদর দফতরে এই নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে দিলীপবাবু বলেন, ‘তমোনাশ ঘোষের মৃত্যু অত্যন্ত দুঃখের। উনি গত ২৪ মে করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। ১ মাস ধরে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার পরেও তাঁকে বাঁচানো গেল না। এতেই বোঝা যায় রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থার ঠিক কী অবস্থা। সরকার চেষ্টা করেও একজন ভিআইপিকে বাঁচাতে পারে না। তাহলে সাধারণ মানুষের কী অবস্থা তা সহজেই বোঝা যায়।’

You might also like
Leave a Comment