কলকাতা

ভোট পড়ছে না ভবানীপুরে, টুইট করে এলাকাবাসীকে ভোট দিতে যাওয়ার আর্জি জানালেন ফিরহাদ হাকিম

আজ ৩০শে সেপ্টেম্বর, ভবানীপুর উপনির্বাচনে হাই ভোল্টেজ ভোট। এই কেন্দ্রের ভোটের দ্বারাই নির্ধারণ হবে মুখ্যমন্ত্রীর ভাগ্য। মুখ্যমন্ত্রীর গদি টিকিয়ে রাখতে ভবানীপুর থেকে তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে রয়েছেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল ও বামপ্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাস।

নন্দীগ্রামে হেরে যাওয়ার জেরে এটাই মমতার কাছে দ্বিতীয় ও শেষ পরীক্ষা নিজের গদি বাঁচানোর। এদিন ভবানীপুর ছাড়াও নির্বাচন রয়েছে মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্রে – সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর। এই দুই কেন্দ্রে সকাল থেকে ঠিকঠাক ভোট হলেও ভবানীপুর কেন্দ্র নিয়ে নানান বিতর্ক ইতিমধ্যেই উঠে এসেছে।

ভোট শুরু হওয়ার পরই বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল অভিযোগ আনেন ভবানীপুর কেন্দ্রের ১২৬ নম্বর বুথ জ্যাম করা হয়েছে। তিনি বলেন, “মদন মিত্র ইচ্ছাকৃতবভাবে ভোটিং মেশিন বন্ধ করে দিয়েছেন কারণ তিনি বুথটি দখল করতে চান”। তিনি আরও বলেন, “আমি মানুষকে বার বার অনুরোধ করছি ভয় না পেতে। তাঁদের বসেছি নামুন (বহুতল থেকে) আর ভোট দিন। আমি সবটাই মানুষের উপর ছেড়ে দিয়েছি। যদি মানুষ চায় তা হলে দেখবেন, যা নন্দীগ্রামে হয়েছে, তা ভবানীপুরেও হবে”।

তবে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ নাকোচ করা হয়েছে শাসকদলের তরফে। তবে রাজ্যের বাকি দুই কেন্দ্রে নির্দিষ্ট হারে ভোট পড়লেও, ভবানীপুরে ভোটের হার তুলনামূলক বেশ কম। আজ আকাশ পরিস্কার থাকলেও বুথমুখী হচ্ছেন না ভবানীপুরবাসী। এই কারণে টুইট করে মানুষকে ভবানীপুরে ভোট দিতে যাওয়ার আর্জি জানান কলকাতার পুরপ্রশাসক তথা রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

টুইটে তিনি লেখেন, “ভবানীপুরের সকল বাসিন্দাদের অনুরোধ করছি আপনারা বাড়ি থেকে বের হন ও উন্নয়নের জন্য, সাম্যের জন্য ভোট দিন”। এদিন সকালেই ভোটগ্রহণ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন ফিরহাদ হাকিম। চেতলায় নিজের কার্যালয়েই রয়েছেন তিনি।

Related Articles

Back to top button