সব খবর সবার আগে।

বাম মনোভাব! যৌন হেনস্থায় অভিযুক্তকে প্রার্থী ঘোষণা বামেদের, প্রতিবাদে সরব হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিক্ষোভ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রের

তিনি নিজেও একজন বাম সমর্থক। কিন্তু যৌন হেনস্থায় অভিযুক্ত একজনকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন করার বিষয়ে আওয়াজ তুললেন তিনি। তাঁর সেই পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। স্বাভাবিকভাবেই নির্বাচনের আগে এই ধরণের ঘটনা সামনে আসায় বেশ অস্বস্তিতে পড়ছে লাল শিবির।

জানা গিয়েছে, বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে সিপিআইএমের পক্ষ থেকে প্রার্থী করা হয়েছে প্রোফেসর ডঃ প্রীতি কুমার রায়কে। তাঁকে প্রার্থী করা নিয়েই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। জানা গিয়েছে, এই ডঃ প্রীতি কুমার রায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ছিলেন। কিন্তু ২০১৮ সালের শেষের দিকে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়।

এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই এক ছাত্র প্রদীপ্ত ইকারাস। তিনি ফেসবুকে ডঃ প্রীতি কুমার রায়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তোলেন ফেসবুকে। তাঁর অভিযোগ, ২০১৮ সালে অক্টোবর মাসে এই প্রীতি কুমার রায়ের বিরুদ্ধে এক রিসার্চ স্কলার যৌন হেনস্থার অভিযোগ আনে। এরপরই সেই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ আসতে থাকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আসতে থাকে যে তিনি নাকি ছাত্রীদের ভিডিও কলে তাঁকে খুশি করতে বলতেন। মহিলাদের মেসেজ করে উত্যক্ত করা থেকে শুরু করে জোর কর মেয়েদের লং ড্রাইভে নিয়ে যাওয়া, তাদের সঙ্গে অসভ্যতামি করা, এমন সব অভিযোগ আসতে থাকে ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। কিন্তু তিনি নিজের প্রভাব খাটিয়ে সকলকে চুপ করিয়ে রাখতেন বলে দাবী উক্ত ছাত্রের।

কিন্তু ২০১৮ সালে এই ঘটনা সামনে আসে ও অধ্যাপকের এই ঘৃণ্য অপরাধ প্রমাণিত হয়। এরপর সেই বছরই তাঁকে ডিপার্টমেন্ট থেকে বরখাস্ত করা হয়। এই ঘটনার প্রমাণে নিজের পোস্টের সঙ্গে ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে উপাচার্যকে লেখা অভিযোগকারীর চিঠির কপিও পোস্ট করেন ওই ছাত্র।

#যৌন_হেনস্থায়_অভিযুক্ত_কাউকে_প্রার্থী_নয়

শিক্ষাক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার ঘটনা দেশজুড়ে বারবার সামনে এসেছে। রিসার্চের…

Posted by Pradipta Icarus on Thursday, 11 March 2021 

ওই ছাত্রের অভিযোগ, ২০১৪ সালে যে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ‘হোক কলরব’ শিক্ষাক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে সরব হয়ে গোটা দেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল, সেই যাদবপুরেই তারপরেও এই ধরণের ঘৃণ্য, যৌন হেনস্থা, নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

আরও পড়ুন- শিশির অধিকারীর সঙ্গে সাক্ষাৎ লকেটের, অধিকারী বাড়িতে ফের কী তবে পদ্ম ফুটবে? 

তাঁর অভিযোগ, এরকম ঘৃণ্য ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকা একটি মানুষ এত কিছুর পরেও, তাঁর অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পরও ভোটের টিকিট পায় কী করে? এই ঘটনার চরম নিন্দা করেছেন প্রদীপ্ত। নিজে বাম সমর্থক হওয়ার পরও বাম সংগঠনের নেওয়া এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করেছেন তিনি। তাঁর দাবী, নারী সুরক্ষা ও নিরাপত্তাকে গুরুত্ব দিতে এই ধরণের প্রার্থীকে যেন অবিলম্বে বয়কট করা হয়।

You might also like
Comments
Loading...