কলকাতা

‘এক-দু’মাসের মধ্যেই টের পাবেন’, ‘জ্যাঠামশাই’ সম্বোধন করে কাকে এমন কড়া হুঁশিয়ারি শানালেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়?

রাজ্যে একের পর এক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতির বিষয় উঠে এসেছে। টেট থেকে শুরু করে এসএসসি, সবক্ষেত্রে নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় বারবার নাম জড়িয়েছে তৃণমূলের। রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে শিক্ষা দফতরের প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর নাম উঠে এসেছে এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায়।

এসএসসি হোক বা টেট, সব মামলাই সামলেছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। রাজ্য পুলিশের ভরসা না রেখেই এসএসসি মামলায় তিনি সিবি আই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। আবার টেট মামলাতেও আদালতের নজরদারিতেই সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এবার হাইকোর্টের এক আইনজীবীকে ‘জ্যাঠামশাই’ বলে বেশ হুঁশিয়ারি শানালেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, “কোনও এক জ্যাঠামশাই বলে বেড়াচ্ছেন অভিজিৎবাবু এটা করেননি অভিজিৎবাবু ওটা করেননি। কে এটা করছেন আমি জানি”। শুধু তাই-ই নয়, সেই আইনজীবীর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করেছেন বলেও উল্লেখ করেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। এর পাশাপাশি আরও বলেন, “এক-দু’মাসের মধ্যে তিনি টের পাবেন”।

এরপরই কার্যত প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে কাকে এমন কথা বললেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। যদিও সে বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন আইনজীবী। অন্যদিকে, এই মামলার বিষয়ে আইনজীবী অরুণাভ ঘোষের নানান মন্তব্যে স্পষ্ট যে তিনি বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের কাজে বেশ অসন্তুষ্ট। তাহলে কী তিনিই সেই যাকে হুঁশিয়ারি শানিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

অরুণাভ ঘোষের কথায়, “বিচারপতি একতরফা নির্দেশ জারি করছেন। অনেক ক্ষেত্রে অভিযুক্ত পক্ষের, আইনজীবীর বক্তব্য, শুনছেন না। তিনি বিচারের নামে প্রহসন করছেন”। বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের বিচারের পদ্ধতিকে প্রহসন বলার সঙ্গে সঙ্গে তিতাঁর কটাক্ষ, “কলকাতা হাইকোর্টের এক বিচারপতি দ্রুত ও ন্যায় বিচারের নামে হাততালি কুড়ানোর চেষ্টা করছেন”।

এহেন বক্তব্যের পরই বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, “জ্যাঠামশাই বলে বেড়াচ্ছেন আমি আইনের এ বি সি ডি জানি না। কলেজিয়ামের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করছেন তিনি। তিনি নিজে কি এ বি সি ডি জানেন? জ্যাঠামশায়ের পারফরম্যান্স অবশ্য সবাই জানে। কোনও মামলাই নেই তাঁর কাছে”।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এর আগে একাধিকবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়কে কোণঠাসা করার চেষ্টা করা হয়েছে। এবার এমন এক হুঁশিয়ারির মধ্যে দিয়ে তিনি যে বিশিষ্ট আইনজীবীকে কড়া ভাষায় তোপ দাগার পাশাপাশি অন্যান্য আইনজীবীদেরও হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখলেন, তা বেশ স্পষ্ট।

Related Articles

Back to top button