কলকাতা

টেট পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে ভুলের জের, ১৮৫ জনের পর এবার ফের আরও ৬৫ জনকে চাকরি দেওয়ার নির্দেশ বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের

২০১৪ সালে টেট পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে ৬টি প্রশ্ন ভুল এসেছিল। এই প্রশ্নগুলির যে পরীক্ষার্থীরা উত্তর দিয়েছিলেন তাদের পুরো নম্বর দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টের তরফে। এর ভিত্তিতে এর আগে ১৮৫ জনকে চাকরি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এবার আজ, সোমবার ফের সেই একই ভিত্তিতে ৬৫ জনকে চাকরি দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হল।

আদালতের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে আগামী ২৮শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই ৬৫ জনকে নিয়োগ করতে হবে। আগের বারের মতোই এদিনও বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেছন যে যদি শূন্যপদ না থাকে তাহলে তা তৈরি করে এদের নিয়োগ করতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে টেট পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ভুল আসার বিষয়টি সামনে আসে ২০১৮ সালে। এই নিয়ে হাইকোর্টে মামলা করা হয়। এই বিষয়টি যাতে খতিয়ে দেখা হয়, তার জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা হয় আদালতের তরফে। সেই কমিটিও রিপোর্ট পেশ করে জানায় যে ২০১৪ সালের টেটে ছয়টি প্রশ্ন ভুল এসেছিল।

আদালত স্পষ্ট নির্দেশ দেয় যে যে পরীক্ষার্থীরা ওই ছটি প্রশ্নের যে ক’টির উত্তর লিখেছিলেন তাঁদের সেই হিসেবে নম্বর দিতে হবে। আর এর জেরে অনেকেরই ৬ নম্বর করে বাড়ে সেই সময়। এইরকম ১৮৫ জনকে আগেই নিয়োগ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এবার এদিন আরও ৬৫ জনকে নিয়োগের নির্দেশ দিল আদালত।

এর আগে এই প্রশ্নপত্র ভুল নিয়ে প্রাক্তন পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে তীব্র তোপ দাগে আদালত। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে মাইক ভট্টাচার্যকে তলব করা হয়েছিল আদালতে। সেই সময় তাকে বিচারপতি বলেছিলেন, “মামলাকারীরা আপনার সন্তানতুল্য। আপনার অনেক টাকা থাকতে পারে ,কিন্তু যাঁরা মামলা করেছেন তাঁরা গত দু’বছর ধরে কলকাতা হাইকোর্টে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। বিষয়টা আপনার দেখা উচিত ছিল। কিন্তু আপনি নজর দেননি”।

Related Articles

Back to top button