কলকাতা

তৃণমূলের চাপে রিপোর্ট লিখতে বাধ্য হন এসএসকেএমের চিকিৎসকরা, ‘বল দ্রুত গড়াচ্ছে’, বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন মদন

আজ, বৃহস্পতিবার সকাল সকালই গরু পাচার কাণ্ডে (cattle smuggling case) সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal)। এবার তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে মুখ খুলতে গিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র (Madan Mitra)। বলেই দিলেন যে পার্টি বললেই পিজি হাসপাতাল থেকে একটা রিপোর্ট বের করে দেওয়া যেত। এর থেকেই প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কী তৃণমূলের নির্দেশ মতোই নানান নেতাদের রিপোর্ট লেখে এসএসকেএম (SSKM)?

এদিন মদন মিত্র বলেন, “আমি দেখেছি আমার পার্টির সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সেকেন্ড ইন কম্যান্ড বলেছেন যে আমরা কোনও অসততা বা দুর্নীতিকে সমর্থন করব না। গরু অনেক বড় ব্যাপার। ওটা কী করে পাচার করে কাঁধে তুলে আমার কোনও আইডিয়া নেই। তবে আমি খবরের কাগজে দেখেছি যে তিনি অসুস্থ। ও যেতে পারেনি, আজকে ওকে গ্রেফতার করেছে। এর পর দেখা যায়”।

এরপরই বিজেপিকে আক্রমণ শানিয়ে মদন বলেন, “তবে আমি এটা বলতে পারি, বল গড়াতে শুরু করেছে। আর হঠাৎই বিজেপি বলতে শুরু করেছে ডিসেম্বরে লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচন একসঙ্গে করে দেবে। বিধানসভায় আমাদের ২২০ জনের ওপরে বিধায়ক রয়েছে। তাদের কি প্রত্যেককে গ্রেফতার করবেন। তাদের কি প্রত্যেককে কেস দেবেন? না কি তারা প্রত্যেকে দুর্ঘটনায় মারা যাবে? না কি তারা আত্মহত্যা করবে”।

কামারহাটির বিধায়কের কথায়, “আমাকে যতবার সিবিআই – ইডি ডেকেছে প্রতিবার সহযোগিতা করেছি। আমাদের দল কিন্তু কাউকে বলেনি সিবিআই ডাকলে যাবে না। কিন্তু অনুব্রত কেন যাননি তিনিই বলতে পারবেন। ডেকেছিলেন, অনুব্রত যেতেই পারতেন। পার্টি যদি বলত তুমি যেও না তাহলে পিজি হাসপাতাল থেকে একটা রিপোর্ট ইজি করে দেওয়া যেত। পার্টি যদি মনে করত যে অনুব্রত এত অসুস্থ যে যেতেই পারবে না। সেখানে পিজি বলেছে স্থিতিশীল”।

তবে এবার মদনের এহেন মন্তব্য নানান প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়েছে তাঁর দলকেই। কারোর শারীরিক অবস্থা কেমন, তিনি সিবিআইয়ের কাছে হাজিরা দিতে পারবেন কী না, তা তো চিকিৎসকরা ঠিক করবেন। তাতে তৃণমূলের কী ভূমিকা কী আর ‘পার্টি’ এসএসকেএম-কে কিছু বলবেই বা কেন?

এতদিন ধরে বিরোধীরা অভিযোগ করে এসেছেন যে তৃণমূলের চাপের মুখে পড়েই এসএসকেএমের চিকিৎসকরা নানান প্রেসক্রিপশন লেখেন। তাহলে কী এবার তাই-ই মেনে নিলেন মদন মিত্র? সত্যিই কী কোন নেতা এসএসকেএমে ভর্তি থাকবেন, তা তৃণমূল ঠিক করে দেয়? আদালতও এমনই কিছু পর্যবেক্ষণ করেছিল, আর মদনের মন্তব্যে তাই-ই যেন সত্যি হল।

Related Articles

Back to top button