সব খবর সবার আগে।

কোয়ারেন্টিন সেন্টার নাকি হানাবাড়ি! ভুতের ভয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা পরিযায়ী শ্রমিকের?

এতদিন কোয়ারেন্টিন সেন্টারের পরিকাঠামো, খাদ্যাভাব এই বিষয়গুলো নিয়েই সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু এবার সামনে এলো ভুতের আতঙ্ক। সম্প্রতি অন্ধ্রপ্রদেশের কুর্নুলের এক কোয়ারেন্টিন সেন্টারে একজনের আত্মহত্যার চেষ্টার জেরে ঘটনাটি সামনে আসে। আত্মহত্যা করতে চাওয়া ওই ব্যক্তিটি মনে প্রাণে বিশ্বাস করেন ওই কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নাকি ভুত আছে। আর শুধু তিনি নন ওই সেন্টারে থাকা বাকি শ্রমিকরাও এই কথা বিশ্বাস করতে শুরু করেন।

মহারাষ্ট্রের থানে থেকে একদল শ্রমিক অন্ধ্রপ্রদেশের কুর্নুলে এসে পৌঁছান। ভিন্ন রাজ্য থেকে আসার দরুন সরকারী নির্দেশিকা অনুযায়ী তাঁদের কোয়ারেন্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়। এক সরকারি স্কুলেই ঠাঁই হয় তাঁদের। কোসিগি গ্রামের ওই স্কুলবাড়িকে ঘিরেই নাকি এখন নানারকম ভুতুড়ে গল্প রটেছে।

গত মাসের ১৮ তারিখ নাগাদ এই পরিযায়ী শ্রমিকরা সকলেই স্কুলবাড়িতে এসে পৌঁছায়। তারপর কোথা থেকে তারা জানতে পারে, ওই বাড়িতে ওই সরকারি স্কুলটি নাকি হানাবাড়ি। একথা কর্তৃপক্ষকে জানালেও, পরিযায়ীদের বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি। কারণ তাঁদের লালারসের পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও এসে পৌঁছায়নি।

বৃহস্পতিবার সকালে ওই দলেরই একজন স্কুলবাড়ির জানলা থেকে গলায় কাপড় পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। কপাল জোরে বাকিদের চোখে পড়ে যায় ঘটনাটি, সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালেও নিয়ে যাওয়ায় তাঁকে বাঁচানো সম্ভব হয়। এখন তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে কি ভূতের ভয়ের থেকেই আত্মহত্যার চেষ্টা? প্রশ্নের মুখে হানাবাড়ি, উত্তর খুঁজছে কর্তৃপক্ষ।

You might also like
Leave a Comment