কলকাতা

করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপি শুরু হল কলকাতা মেডিকেল-এ

এবার কলকাতাতেও শুরু হলো প্লাজমা থেরাপি। করোনা আক্রান্ত রোগীদের সাহায্য করতেই প্লাজমা থেরাপি শুরু করল কলকাতা মেডিকেল কলেজ। ইতিমধ্যেই প্রথম পর্যায়ের ক্লিনিকাল ট্রায়াল শুরু হয়ে গিয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সামনের সপ্তাহেই দুই রোগীকে দেওয়া হবে প্লাজমা।

অনেকের মনেই প্রশ্ন হচ্ছে যে, কী এই প্লাজমা থেরাপি?

করোনামুক্ত রোগীর শরীরে তৈরি অ্যান্টিবডি, আক্রান্তের শরীরে প্রবেশ করালে জব্দ হতে পারে করোনা। এই প্রক্রিয়াই প্লাজমা থেরাপি। করোনার প্রতিষেধক টিকা আবিস্কারের চেষ্টার পাশাপাশি এই পদ্ধতিতেও করোনার সঙ্গে লড়াইয়ের কথা ভাবছেন বিজ্ঞানী এবং চিকিৎসকরা। এবার কলকাতাতেও শুরু হয়ে গেল এই প্রক্রিয়ার ট্রায়াল।

শতাব্দী প্রাচীন কলকাতা মেডিকেল কলেজেই শুরু হয়েছে নতুন এই চিকিৎসার কাজ। কনভালেসেন্ট কোভিড প্লাজমা প্রক্রিয়াকরণ চলছে জোর কদমে।

ইমিউনো হেমাটোলজি ব্লাড ট্রান্সফিউশন ডিপার্টমেন্টে চলছে এই কাজ। সেল সেপারেটর মেশিন ব্যবহৃত হচ্ছে এই গোটা প্রক্রিয়ায়।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, বুধবারই হাবড়ার করোনামুক্ত তরুণীর থেকে প্লাজমা সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে, শুধুমাত্র করোনা মুক্তের প্লাজমা হলেই হবে না। তাঁর শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে কিনা পরীক্ষা করে তবেই প্লাজমা বা রক্তরস সংগ্রহ করা হয়। এর আগে হাবড়ার তরুণীর সব পরীক্ষা হলেও ঝড়ের জন্য পিছিয়ে যায় প্লাজমা সংগ্রহ।

করোনা মুক্ত তরুণীর শরীর থেকে ৪১০ মিলি প্লাজমা সংগ্রহ হয়েছে। ২ জনের শরীরে এই অ্যান্টিবডিযুক্ত প্লাজমা প্রয়োগ হবে। অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ডিস্ট্রেস সিন্ড্রোমে আক্রান্তদের এই চিকিৎসা হবে বলেই জানানো হয়েছে। বেলেঘাটা আইডির দুই রোগী এই প্লাজমা পাবেন।

যদি এই প্রক্রিয়া সফল হয় এবং ওই দুই রোগী করোনা মুক্ত হন তবে ফের একবার চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন মাইলস্টোন গড়বে কলকাতা মেডিকেল কলেজ।

Related Articles

Back to top button