সব খবর সবার আগে।

মুশকিল আসান কলকাতাবাসীর! খুলছে টালা ব্রিজ, জানুন কবে

ফেব্রুয়ারি মাসেই খুলে যেতে পারে নয়া রূপে টালা ব্রিজ। যেটি তৈরিতে ব্যয় হয়েছে ৩৬৫ কোটি টাকা। জীর্ণপ্রায় ব্রিজটি থেকে দুর্ঘটনা হওয়ার আশঙ্কা থাকায় ২০১৯ সালের অক্টোবরে ব্রিজটি ভেঙ্গে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় রাজ্য সরকারের তরফ থেকে।

১৯৬২ সালে প্রথম টালা ব্রিজ চালু হওয়ার সময় এর ভার বহনের সক্ষমতা ছিল ১৫০ টন। ২০১৮ সালে সেপ্টেম্বর মাসে মাঝেরহাট ব্রিজ বিপর্যস্ত হওয়ার পরে অন্যান্য সেতুর সঙ্গে টালা ব্রিজের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়।

এরপর সেতু বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী এই ব্রিজ ভেঙ্গে ফেলার কাজ শুরু হয়। গত বছর ২২ ডিসেম্বর ২৪ মিটার চওড়া এবং ৬১০ মিটার দীর্ঘ টালা ব্রিজের নতুন নকশাটি পূর্ব রেল অনুমোদন করে। পুরনো টালা ব্রিজে রেল লাইনের মাঝে পিলার থাকলেও নতুন নকশায় চার লেনের কেবল স্টেয়ড রেল ওভার ব্রিজ তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। লাইনের উপরে ২৪০ মিটার অংশের পুরোটাই কেবলের উপর ঝুলবে।

এটির নির্মাণকার্য জানুয়ারি মাসে শুরু হলেও ইতিমধ্যেই কর্মরত ইঞ্জিনিয়াররা রেলের উপরের অংশের কাজ ছাড়া দুদিকের র‍্যাম্প নির্মাণ শেষ করেছেন। বর্তমানে ব্রিজটির ধারণ ক্ষমতা ৩৮৫ টন।

শনিবার পুরসভার বিদায়ী ডেপুটি মেয়র এবং স্থানীয় বিধায়ক অতীন ঘোষ ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে ব্রিজ নির্মাণের অগ্রগতি দেখার পর পূর্ত দপ্তর এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত ‘লারসেন এন্ড টুব্রো’র শীর্ষ ইঞ্জিনিয়ারের সঙ্গে নির্মাণ পরবর্তী ধাপ নিয়ে বৈঠক শেষে জানান, “ট্রেন লাইনের উপরের অংশের নির্মাণের জন্য অনুমতি পেলেই এবার সেতুর ঝুলন্ত অংশের কাজ শুরু হবে। ইঞ্জিনিয়াররা আশ্বাস দিয়েছেন নয়া টালা ব্রিজের নির্মাণ ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারির মধ্যে সম্পন্ন করা যাবে। তাহলে ওই মাসেই মুখ্যমন্ত্রী তা উদ্বোধন করবেন।“

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...