সব খবর সবার আগে।

আর মাত্র ৮০ বছর, নেমে আসছে ভয়ংকর বিপদ, তলিয়ে যাবে ভারতের ১২ শহর, রিপোর্ট নাসা-র

বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে কী ভয়ংকর পরিস্থিতি যে বিশ্ববাসীর জন্য অপেক্ষা করছে, তা আগেই জানানো হয়েছে আইপিসিসি তথা রাষ্ট্রসংঘের আন্তঃমহাদেশীয় প্যানেলের রিপোর্টে। আর এবার এই সংস্থাই জলবায়ুর পরিবর্তন নিয়ে একটি ম্নতুন নতুন রিপোর্ট পেশ করল, যা ভারতের জন্য অত্যন্ত সংকটজনক বিষয়।

আইপিসিসি-র নতুন এই রিপোর্টে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধি নিয়ে। এই পূর্বাভাস যদি বাস্তবায়িত হয়, তাহলে আগামী ৮০ বছরের মধ্যে অর্থাৎ ২১০০ সালের মধ্যেই ভারতের ১২টি সমুদ্র উপকূলবর্তী শহর জলের তলায় পুরোপুরি তলিয়ে যাবে।

এমনটা যদি না-ও হয়, তাহলেও এই শতকের শেষের মধ্যেই এই সমস্ত শহরগুলি জলের অন্ততপক্ষে তিন ফুট নীচে ডুবে যাবে বলে জানানো হয়েছে। এই শহরের মধ্যে রয়েছে মুম্বই, কোচি, বিশাখাপত্তনম, চেন্নাই-এর মতো সমুদ্র বন্দর।

এই পূর্বাভাসের নেপথ্যে রয়েছে নাসা। তারা আইপিসিসি-র আগের রিপোর্টের ভিত্তিতে উষ্ণায়নের জেরে বিশ্বজুড়ে নানান শহরের সমুদ্রের জলস্তর কতটা বাড়তে পারে, এই নিয়ে গবেষণা করে। তাদের এই গবেষণাতেই নতুন এই রিপোর্ট উঠে এসেছে। এই রিপোর্টে রয়েছে ভারতের ১২টি শহররে নাম।

আরও পড়ুন- পুলিশের কাজে হস্তক্ষেপ, বাধা! ত্রিপুরা থানায় এফআইআর দায়ের অভিষেক-কুণাল-ব্রাত্য-দোলার বিরুদ্ধে

নতুন এই রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বের অন্যান্য অংশের সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধির হারের তুলনায় এশিয়ার শহরগুলিতে সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধির হার দ্রুত হচ্ছে। এই কারণে যে পরিবর্তন ১০০ বছরে একবার হওয়ার কথা, ২০৫০ সালের মধ্যে ৬ থেকে ৯ বছরের ব্যবধানে সেই পরিবর্তন হবে। জলবায়ুর তারতম্যের জন্য নানান এলাকায় এই হার নানান ধরণের হবে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, হিন্দুকুশ হিমালয় এলাকায় হিমবাহ দ্রুত হারে গলছে। জানা গিয়েছে, পুরু বরফের চাদর বর্তমানে শুধুমাত্র অতি উচ্চ পার্বত্য এলাকাগুলিতেই সীমাবদ্ধ থাকছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, ২১০০ সালের মধ্যেই ভারতের যে ১২টি সমুদ্র উপকূলবর্তী শহর ডুবে যেতে পারে, তার সম্পূর্ণ তালিকা হল– কান্ডলা, ওখা, ভাবনগর, মুম্বই, মার্মাগাও, ম্যাঙ্গালোর, কোচিন, পারাদ্বীপ, খিদিরপুর, বিশাখাপত্তনম, চেন্নাই এবং তুতিকোরিন। এও জানা গিয়েছে যে উপকূলীয় এলাকাগুলিতে ঘন ঘন বন্যা হবে। উপকূলীয় এলাকায় ভূমিক্ষয়ে এর প্রভাব পড়বে।

You might also like
Comments
Loading...