সব খবর সবার আগে।

প্যাংগং থেকে ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে ঘাঁটি গড়ছে চীন, উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়ল ছোটো ছোটো ঘর

কিছুদিন আগেই প্যাংগং লেক থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে ভারত ও চীন, উভয় দেশই। কিন্তু প্যাংগং থেকে সেনা সরিয়ে নিলেও এর ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে ফের নতুন ঘাঁটি গড়ছে চীন, উপগ্রহ চিত্রে এমনই হদিশ মিলেছে।

উপগ্রহ চিত্রে দেখা গিয়েছে, রুটগ বেসে ছোটো ছোটো ঘর তৈরি করেছে পিপলস লিবারেশন আর্মি। এখানের রাখা হয়েছে সামরিক সরঞ্জাম। এই রুটগ বেসক্যাম্প থেকে প্যাংগং-এর উপর নজরদারি চালায় চীনের সেনা বাহিনী। তাই প্রয়োজনে তারা যে সীমান্ত পেরিয়ে ফের ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করবে না, এমন আশঙ্কা একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন- Islama-BAD নয়, Islama-GOOD! রাজধানীর নাম পরিবর্তন করতে তৎপর ইমরান সরকার, জমা অনলাইন পিটিশন

ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর ও দক্ষিণ প্যাংগং থেকে সেনা ও সামরিক কাঠামো সরিয়ে নিয়েছে চীন। অস্ত্রপ, তাঁবু নিয়ে তাদের সেই অঞ্চল ছাড়তে দেখা গিয়েছে। কিন্তু তারা যে সেনা নিয়ে একেবারেই চলে গিয়েছে, তা নয়। সেনা সূত্রে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, চীনা সেনা ও সামরিক বাহিনী প্যাংগং থেকে সরে গিয়ে এর ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে রুটগ বেসে ফের তাদের ঘাঁটি গেড়েছে। অনেক আগে থেকেই এই ঘাঁটি সাজানোর কাজ চলছিল বলে মনে করা হচ্ছে। উপগ্রহ চিত্রে দেখা গিয়েছে যে এ অঞ্চলে লাল ফৌজরা ছোটো ছোটো ঘর তুলেছে। এখানেই যে সামরিক অস্ত্র মজুত রয়েছে, তা নিয়ে কোনও দ্বিমত নেই। আলাদা রাইফেল ডিভিশনও তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মতে, আন্তর্জাতিক সীমানা চুক্তি লঙ্ঘন করে কোনও দেশর সেনাই বেআইনিভাবে অন্য দেশের সীমান্ত পার করতে পারে না। কিন্তু চীন সেই চুক্তি বারবার লঙ্ঘন করেছে। এর সবথেকে বড় উদাহরণ হল গালওয়ান উপত্যকার সংঘর্ষ। জোর করে সেনে ঢুকিয়ে আধিপত্য বিস্তার সম্ভব বুঝতে পেরেই চীন একটু একটু সীমান্তে তাদের শক্তি বাড়াচ্ছে।

আরও পড়ুন- নিষ্ঠুরতার সীমা পার! গাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মার নিরীহ হস্তিনীকে 

জানা গিয়েছে শুধু রুটগ ঘাঁটিই নয়, ভারতের নানান সীমান্তেই চীন জনপদ তৈরি করে রেখেছে। সেখানে সেনাও যুদ্ধের অস্ত্র মোতায়েন করা রয়েছে। এইসব গ্রামগুলিতে চীন সেনা বাঙ্কার তৈরি করে, মজুত রাখা হয় অস্ত্র। সীমান্তে ভারতের সেনার কীরকম অবস্থান, এই গ্রামগুলির মাধ্যমে তা তদারকি করে চীন।

You might also like
Comments
Loading...