সব খবর সবার আগে।

পাকিস্তান যে সন্ত্রাসবাদকে মদত দেয়, সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর অত্যাচার চালায়, তা গোটা দুনিয়া জানে, যোগ্য জবাব ভারতের

ইউনাইটেড নেশন-এর হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলের প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে পাকিস্তান সম্পূর্ণ মিথ্যে কথা বলছে ও বিকৃত তথ্য প্রচার করছে। পাকিস্তানে দীর্ঘদিন ধরেই মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটে চলেছে। আর এর থেকে বাঁচতে ও দুনিয়াকে বিভ্রান্ত করতে পাকিস্তান মিথ্যাচারের আশ্র্য নিয়েছে। গতকাল, বুধবার এমন কড়া ভাষাতেই পাকিস্তানকে বিঁধল ভারত। জেনেভার ইউএন-এর হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলের অধিবেশনে পাকিস্তানের মিথ্যাচারের উচিত জবাব দিল ভারত।

এদিনের অধিবেশনে ভারতীয় প্রতিনিধি জানান যে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে কীভাবে দিনের পর দিন মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। ভারতের প্রতিনিধির দাবী, পাক সরকারের মদতেই নানান মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটে, আর সেই মোড় অন্যদিকে ঘোরাতে পাক সরকার নানান পদক্ষেপ নেয়।

ভারতের তরফে এও দাবী করা হয় যে পাকিস্তানে বসবাসকারী সংখ্যালঘু হিন্দু, শিখ, খ্রিষ্টানদের অধিকার রক্ষা করতে পাকিস্তান সম্পূর্ণ ব্যর্থ। তাদের উপর অত্যাচার করা, জোর করে ধর্মান্তর করানো, জোর করে বিয়ে করা, এমন ঘটনা আকছার সে দেশে ঘটেই চলেছে।

এও বলা হয় যে পাকিস্তানের মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদীরা জাতিগত ও ধর্মগতভাবে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষকেই বেছে বেছে খুন করে। ভারতের দাবী, পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের দৈনন্দিন জীবনযাত্রার উপর এক আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। সংবাদমাধ্যমে থেকে শুরু করে সিভিল সোসাইটি, মানবাধিকার কর্মীদের কণ্ঠরোধ করারও চেষ্টা চালানো হচ্ছে পাকিস্তানে।

ভারতের দাবী, পাকিস্তান যে মানবাধিকার রক্ষার কথা বলে, তা পুরোপুরি ভাঁওতা। গোটা বিশ্ব জানে যে পাকিস্তান খোলাখুলিভাবে সন্ত্রাসবাদকে মদত দেয়। ভারতের তরফে এদিন স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয় যে ভারতের অভ্যন্তরীণ কোনও বিষয়ে কথা বলার অধিকার অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক অপারেশনের নেই।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...