সব খবর সবার আগে।

‘অধিকৃত কাশ্মীর এক্ষুনি ছেড়ে দিক পাকিস্তান’, রাষ্ট্রপুঞ্জে ইমরানের দেশকে কড়া ভাষায় আক্রমণ ভারতের

সন্ত্রাসবাদ নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে এবার পাকিস্তানকে তুলোধোনা করল ভারত। ভারতের কথায়, গোটা বিশ্ব জানে যে পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদে মদত দেয়। রাষ্ট্রপুঞ্জের তালিকায় যে সমস্ত জঙ্গিদের নাম রয়েছে, তা বেশীরভাগই রয়েছে পাকিস্তানে। রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতীয় প্রতিনিধি স্নেহা দুবে সাফ জানিয়ে দেন, “জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অঙ্গ। অধিকৃত কাশ্মীর এক্ষুনি ছেড়ে দিক পাকিস্তান”।

গতকাল, শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তোলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। জম্মু-কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা রদ হওয়া থেকে শুরু করে কাশ্মীরের নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানির মৃত্যু পর্যন্ত নানান বিষয়  নিয়ে সরব হন তিনি। এরপরই পাকিস্তানকে রীতিমতো তুলোধোনা করেন ভারতের ফার্স্ট সেক্রেটারি স্নেহা দুবে।

বেশ স্পষ্ট ভাষায় তিনি জানান যে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এনিয়ে কোনও আলোচনা কাম্য নয়। বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের অন্যতম পৃষ্টপোষক হচ্ছে পাকিস্তান। স্নেহা বলেন, “পাকিস্তান ওসামা বিন লাদেনকে আশ্রয় দিয়েছিল। আজও পাক নেতারা তাকে শহিদের মর্যাদা দেয়। রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের তালিকায় থাক জঙ্গিদের বেশিরভাগই ওই দেশে রয়েছে”।

এর আগেও একাধিকবার পাকিস্তান কাশ্মীর প্রসঙ্গ তোলার চেষ্টা করেছে আর এই বিষয়ে তাদের মদত দিয়েছে চীন। তবে ইমরানের চেষ্টা বারবারই ব্যাহত হয়েছে। এমনিতেও বিশ্ববাসীর কাছে পাকিস্তানের ইমেজ ভালো নয়। আফগানিস্তানে তালিবান ও হাক্কানি নেটওয়ার্ককে যে ইমরানের দেশে মদত দিচ্ছে, তা বেশ স্পষ্ট।

আরও পড়ুন- ‘বন্ধুত্ব’ শেষ! আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলালে ইমরানকে ছাড়া হবে না, পাক প্রধানমন্ত্রীকে ‘তোতাপাখি’ বলল তালিবানরা

এই প্রসঙ্গ তুলে ধরে ভারতের প্রতিনিধি স্নেহা বলেন, “এর আগেও আন্তর্জাতিক মঞ্চটিকে ব্যবহার করে ভারতের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়েছে পাকিস্তান। এটা খুবই দুর্ভাগ্যের বিষয়। আজ পাকিস্তানে হিন্দু, শিখ, জৈন সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নিপীড়িত। কিন্তু ভারত একটি বহুমাত্রিক গণতান্ত্রিক দেশ। এদেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে প্রেসিডেন্ট তথা প্রধানমন্ত্রী পদেও বসার নজির রয়েছে”।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারতে নাকি এবার ‘অর্থনৈতিক সন্ত্রাস’ চালানোর পরিকল্পনা করছে পাকিস্তান। এমনকি তালিবানকে কাজে লাগিয়ে জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ বাড়িয়ে ছক কষারও পরিকল্পনা করছে বলে আশঙ্কা ভারতের গোয়েন্দা সংস্থাগুলির। আফগানিস্তান জয় নিয়ে তালিবানদের অভিনন্দন জানিয়েছে আল কায়দা জঙ্গি সংগঠন। এমনকি, ‘ইসলামের শত্রুদের’ হাত থেকে কাশ্মীরকে রক্ষা করার জন্য তালিবানকে এগিয়ে আসতে আহ্বান জানিয়েছে জেহাদি সংগঠনটি।

You might also like
Comments
Loading...