সব খবর সবার আগে।

চীন বিশ্বাসযোগ্য নয়! দেপসাং ভ্যালি থেকে সেনা সরানাের প্রশ্নই নেই জানালো ভারতীয় সেনা

ভারত-চীন সম্পর্কের অবনতির মধ্যেই পূর্ব লাদাখের প্যাংগং হ্রদের উত্তর ও দক্ষিণ ভাগ থেকে সেনা সরানাের জন্য চুক্তি করতে পারে ভারত ও জিনপিংয়ের চীন এমন কথা সংসদে জানিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

একইসঙ্গে চীনা সংবাদমাধ্যমও দাবি করে জানিয়েছিল , প্যাংগং-এর পাহাড়ি এলাকা থেকে শৃঙ্খলা বজায় রেখেই সেনা সরানাের প্রক্রিয়া শুরু করেছে পিপলস লিবারেশন আর্মি। চুসুল সীমান্তে ভারত-চীন নবমতম সেনা কম্যান্ডার পর্যায়ের বৈঠকের পরেই এই পদক্ষেপ বলে দাবি করেছে তারা।

কিন্তু প্রতিবেশী দেশের ওপরে ভরসা করতে নারাজ ভারতীয় সেনা। শান্তি আলােচনার মাঝেই লাগাতার বিশ্বাসঘাতকতার নজির তৈরি করেছে চৈনিকরা। আর তাই ভারতীয় সেনা সূত্রে স্পষ্ট জানানো হয়েছে , স্পর্শকাতর দেপসাং ভ্যালি থেকে সেনা সরানাের প্রশ্নই নেই , বরং গােগরা ও গালওয়ান উপত্যকা থেকে ধাপে ধাপে সেনা সরিয়ে নেওয়া প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত এপ্রিল – মে মাস থেকে পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর ঢিল ছােড়া দূরত্বে দাঁড়িয়ে রয়েছে ভারত-চীন দু’দেশের সেনা । ঘটেছে একাধিক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ । সীমান্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বহুবার আলোচনায় বসে দুই দেশ। কিন্তু খুঁজে বার করা যায়নি সমাধান সূত্র। চীন সেনা সরানাের প্রতিশ্রুতি দিলেও বাস্তবে তা করেনি । বরং সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা ও যুদ্ধাস্ত্র মােতায়েন যুদ্ধকালীন তৎপরতা দেখিয়েছে। তবে শেষবারের বৈঠকের পরে চিন দাবি করেছে , দু’পক্ষই দ্রুত সেনা প্রত্যাহার করার প্রশ্নে সম্মত হয়েছে । গােগরা হটস্প্রিং ও গালওয়ান উপত্যকা থেকে ২ কিমি করে মােট ৪ কিলােমিটার এলাকায় তৈরি হবে বাফার জোন । ওই এলাকায় টহল দিতে পারবে না কোনও দেশের বাহিনীই । সামরিক অস্ত্রও মােতায়েন করা যাবে না ।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...