সব খবর সবার আগে।

কানাডার পাশে ভারত! করোনা টিকার জন্য মোদীকে ফোন ট্রুডোর, যথাসাধ্য সাহায্যের আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর

একসময় কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এর জেরে ভারত-কানাডার সম্প্রকে চিড় ধরে। তবে মানবিকতার খাতিরে আপাতত কানাডার পাশে দাঁড়ানোরই সিদ্ধান্ত নিল ভারত। করোনা টিকার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ফোন করেন ট্রুডো। তাঁকে যথাসাধ্য সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় ভারতের পক্ষ থেকে।

গতকাল, বুধবার একটি টুইট করে মোদী জানান যে ট্রুডো তাঁকে টিকার জন্য ফোন করেছিলেন এবং তিনি তাঁকে যথাসাধ্য সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন। করোনা নিরাময়ে ও টিকার জন্য ভারত তথা মোদীর ভুয়ো প্রশংসা করেছেন ট্রুডো। এছাড়াও, পরিবেশ বদল ও করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্বের অর্থনীতি নিয়েও তাদের মধ্যে কথা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

কানাডার তরফে একটি বিবৃতি জারি করে বলা দুটি অতিরিক্ত বিষয় সম্বন্ধে উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি হল, ইন্দো-প্যাসিফিকে কীভাবে আইনের শাসন বজায় রাখা যায় এই বিষয়ে। অন্যটি হল, সম্প্রতি হওয়া প্রতিবাদ বিক্ষোভ নিয়ে কথা ও কীভাবে শান্তিপূর্ণভাবে বিবাদ মেটানো যায়, তা নিয়ে কথা। এই বিবাদ যে কৃষক আন্দোলন নিয়েই বলা হয়েছে, তা স্পষ্ট। এর আগেও ট্রুডো এই নিয়ে কথা বলেছেন। তবে ভারতের তরফে তা আমল দেওয়া হয়নি। সাফ জানিয়ে দেওয়া হয় যে এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

করোনার মোকাবিলায় টিকা জোগাড় করতে না পারায় বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছেন ট্রুডো। সম্প্রতি, একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যাতে ট্রুডোর মন্ত্রী অনিতা আনন্দকে জিজ্ঞেস করা হয় যে ভারতের থেকে টিকা চাওয়া হয়েছে কী না। তিনি উত্তর দেন, না। কানাডায় ফাইজার ও মর্ডানার টিকা আসতে চলেছে, তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় কম। তবে অনিতা আশা রাখছেন যে মার্চের মধ্যেই ৬০ লক্ষ টিকার ডোজ পেয়ে যাবেন তাঁরা। কানাডা অ্যাস্ট্রোজেনকে এখনও ছাড়পত্র দেয়নি। সেই ছাড়পত্র এলেই ভারত সেরাম ইনস্টিটিউটের টিকা পাঠাবে আশা করা যাচ্ছে।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...