সব খবর সবার আগে।

BREAKING: “আমরা ভারতে ঢুকে মেরেছি”, পুলওয়ামা হামলায় প্রত্যক্ষ ভূমিকা ইমরান খানেরই, স্বীকার পাক মন্ত্রীর

২০১৯ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি, দিনটা ভারতবাসীর জীবনে কালো দিন। এদিনই জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় ৪০ জনেরও বেশী ভারতীয় জওয়ান শহিদ হন। পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জইশ ই মহম্মদ এই হামলার দায় স্বীকার করে নেয়। কিন্তু পাকিস্তানের তরফ থেকে এই হামলার দায় বারবার নাকোচ করে দেওয়া হয়। তারা বারবার দাবী করে যে এই হামলার সঙ্গে তাদের কোনওরকম সম্পর্ক নেই।

কিন্তু এবার ভরা সংসদে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানেরই এক মন্ত্রী স্বীকার করেন যে পুলওয়ামা হামলায় পাকিস্তানের ও ইমরান খানের প্রত্যক্ষ ভূমিকা রয়েছে। শুধু তাই-ই নয়, এই হামলাকে তিনি ইমরান খানের সাফল্য বলেও মনে করেন। পাকিস্তানের একটি জাতীয় পর্যায়ের বৈঠকে পাকিস্তান বিরোধী পক্ষের মুসলিম লিগের নওয়াজের নেতা সর্দার আয়াজ সাদিক বলেন যে, “মূলত ভারতের ভয়ে ভীত হয়েই ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে তড়িঘড়ি মুক্তি দিয়েছিল পাকিস্তান”।

তিনি আরও বলেন যে, “অভিনন্দন বর্তমানকে আটক করার পর একটি বৈঠক ডাকেন বিদেশমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশি। যদিও এই বৈঠকে আমাদের প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন না। এই বৈঠকে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান বাজওয়া যখন মহম্মদ কুরেশির সঙ্গে দেখা করতে আসেন তখন তার পা কাঁপছিল, রীতিমতো ঘামছিলেন তিনি। কুরেশিকে বলেছিলেন ঈশ্বরের দোহাই অভিনন্দনকে মুক্তি দিন নাহলে আজ রাত ৯টার মধ্যেই ভারতের দিক থেকে তীব্র আক্রমণ হতে পারে”।

তার এই বক্তব্যের বিরোধিতা করে পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী আজ সংসদে দাঁড়িয়ে বলেন যে, “আমরা ভারতে ঢুকে মেরেছি। পুলওয়ামা হামলাতে আমরা যে সাফল্য পেয়েছি, তা আমাদের মন্ত্রী ইমরান খানের নেতৃত্বে গোটা দেশবাসীর সাফল্য”। গোটা দেশবাসীকেই তিনি এই সাফল্যের অংশীদার বলে গণ্য করেছেন।

এই বিষয় নিয়ে অবশ্য এখনও পর্যন্ত পাক প্রধানমন্ত্রীকে কোনও মন্তব্য করতে শোনা যায়নি। তবে এই ঘটনার সত্যতা কতটা আর পাক মন্ত্রীর এই স্বীকারোক্তিতে ভারত সরকারের প্রতিক্রিয়া কী হয়, এখন সেটাই দেখার।

You might also like
Comments
Loading...