সব খবর সবার আগে।

বঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলাদেশ সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী! মতুয়া সম্প্রদায় সর্বোচ্চ তীর্থস্থানেও যাবেন তিনি

বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ডঙ্কা বেজে গেছে। বাংলার মসনদ জিততে উঠে পড়ে লেগেছে বিজেপি শিবির। একের পর এক সভা, মিটিং, মিছিলে বাংলা মাতাচ্ছে পদ্ম নেতৃত্ব। নিত্য রাজ্যে আনাগোনা লেগে রয়েছে বিজেপি হাইকমান্ডের।
এই পরিস্থিতির মাঝেই এবার পশ্চিমবঙ্গের প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দিতে সফরে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

তাৎপর্যপূর্ণভাবে সেখানেই জন্ম মতুয়া ধর্মগুরু হরিচাঁদ ঠাকুরের। তাঁর পুত্র গুরুচাঁদ ঠাকুরেরও জন্মস্থান ওড়াকান্দি। আর পশ্চিমবঙ্গে এই মুহূর্তে মতুয়া সম্প্রদায়ের ভোট পেতেই মাটি আঁকড়ে পড়ে রয়েছেন বিজেপি নেতারা।

বিশ্লেষকদের মতে, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে (CAA) মতুয়াদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে লোকসভায় এই সম্প্রদায়ের ঢালাও ভোট পেয়েছে বিজেপি। বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচিত হয়েছেন হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরের উত্তরসূরি শান্তনু ঠাকুর। কিন্তু তার পরে করোনা-সহ একাধিক কারণে বিষয়টি আপাতত মুলতবি রয়েছে। এর ফলে ক্ষোভ ক্রমে বাড়ছে মতুয়াদের মধ্যে। বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। মানুষের ক্ষোভের কথা নেতৃত্বকেও জানিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি বিজেপির চাণক্য অমিত শাহ সম্প্রতি বনগাঁ-গাইঘাটায় সভা করে এলেও নাগরিকত্ব প্রশ্নের জবাব মতুয়ারা পাননি। তাই এবার রাজ্যে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই বাংলাদেশে মতুয়া-তীর্থ দর্শনে যেতে পারেন মোদী।।
বাংলাদেশ প্রশাসন সূত্রে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ২৬শে মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে শ্রদ্ধা জানাতে টুঙ্গিপাড়া যেতে পারেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর তখনই ওড়াকান্দি সফর‌ও করতে পারেন তিনি। প্রত্যন্ত এই গ্রামে একটি মন্দির রয়েছে, যা মতুয়া সম্প্রদায়ের কাছে সর্বোচ্চ মর্যাদার তীর্থস্থান হিসেবে গণ্য হয়।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী সেখানে গিয়ে হরিচাঁদ-গুরুচাঁদকে প্রণাম করে এলে পশ্চিমবঙ্গের মতুয়া-ভোট টানা বিজেপির পক্ষেও সহজ হবে বলে মনে করছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থান টুঙ্গিপাড়ায় মোদীর সফরের পরিকল্পনার ব্যাপারে বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠকে আলোচনা হয়। তবে এই সফর সম্পর্কে এখনও কিছু চূড়ান্ত হয়নি। সংশ্লিষ্ট এক ভারতীয় আধিকারিক মোদীর টুঙ্গিপাড়া সফরের পরিকল্পনা নিশ্চিত করলেও, বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। ভারতীয় ওই আধিকারিক বলেন, “যদি সবকিছু ঠিকঠাক চলে, তবে তাঁর টুঙ্গিপাড়া সফরের জোরাল সম্ভাবনা রয়েছে।” উভয়পক্ষের অধিকারিকরা জানান, ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী ঢাকা পৌঁছবেন এবং পরের দিন তিনি দেশে ফিরে যাবেন। করোনা প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর এটাই তার প্রথম বিদেশ সফর। ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রথমদিনের উৎসবে যোগ দেবেন। পরের দিন তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করবেন।
You might also like
Comments
Loading...