সব খবর সবার আগে।

BIG NEWS: চীনের সঙ্গে কংগ্রেসের গোপন মউ চুক্তি প্রকাশ্যে আনুন রাহুল গান্ধী, উঠল দাবি

দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ভারত ও চীন বিবাদ প্রসঙ্গে বেশ কড়া ভাষায় ধারাবাহিকভাবে টুইট করে চলেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ঘটনা সবার চোখের স্বাভাবিক লাগতেই পারে কারণ রাহুল গান্ধী কেন্দ্রীয় শাসকদলের বিরোধীদলের নেতা কিন্তু যদি জানা যায় যে আজ থেকে ১২ বছর আগে রাহুল গান্ধী তথা কংগ্রেস চীনের সঙ্গে মউ চুক্তি স্বাক্ষরিত করেছিল তখন কী রকম লাগবে?

হ্যাঁ ঠিকই পড়ছেন। ২০০৮ সালের ৭ই আগস্ট সর্বভারতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক রাহুল গান্ধী চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন। চীনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট যিনি সেই সময় চীনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি এই চুক্তির সময় উপস্থিত ছিলেন।

সব থেকে মজার বিষয় হলো রাহুল যখন চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন তখন কিন্তু তিনি পার্লামেন্টের একজন সদস্য ছিলেন। যদিও এই চুক্তিতে ঠিক কী কী বিষয় রাখা হয়েছিল তা এখনো প্রকাশ্যে আসেনি। সেই সময় IANS news agency ও ইন্ডিয়া টুডের মত সংবাদ সংস্থা এই ঘটনাকে কভার করেছিল।

তাদের প্রকাশিত সংবাদে জানা যায় যে, কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন কংগ্রেস ও চীনের কমিউনিস্ট পার্টির মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে যার ফলে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক ও বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ে আদান-প্রদান চলবে।

এই চুক্তি স্বাক্ষর করার পরেই সোনিয়া গান্ধী সপরিবারে বেইজিং অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যান।সবথেকে বড় কথা হলো যখন এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় তার কিছুদিন আগেই ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি অভিযোগ করেছিল যে তারা কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকারকে মানে না। কিন্তু চীন যেভাবে উদ্যোগ নিয়ে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিল তা থেকেই স্পষ্ট যে তারা কংগ্রেসের সঙ্গে সদ্ভাব বজায় রাখতে উদ্যোগী হয়েছিল আর এ কথা মোটামুটি সবারই জানা যে কংগ্রেস মানেই মূলত গান্ধী পরিবার। তাই একথা পরোক্ষভাবে বলাই যায় যে চীন আসলে গান্ধী পরিবারের সঙ্গেই সদ্ভাব বজায় রাখতে চেয়েছিল এবং তারপরেই ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি কিছুটা থমকে যায়।

স্বাভাবিক ভাবেই এবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে ভারতের সঙ্গে চীনের বিবাদ আজকে নতুন নয়। যখন একটি রাজনৈতিক দল দেশের শত্রু দেশের রাজনৈতিক দলের সঙ্গে একটি গোপন চুক্তি স্বাক্ষর করে তখন দেশদ্রোহিতার পর্যায়েই পড়ে।

তাই এবার সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীর কাছে সাধারন মানুষের আবেদন তারা এই গোপন চুক্তি যেন প্রকাশ্যে আনেন। এই চুক্তির ভিতর কী বিষয় রয়েছে সেটা এখন গৌণ বিষয়, মুখ্য বিষয় হলো কংগ্রেস কী করে এই চুক্তি স্বাক্ষর করতে পারে চীনের সঙ্গে যেখানে চীনের সঙ্গে ভারতের পুরনো বিবাদ সম্বন্ধে কংগ্রেস ভালোমতোই অবগত ছিল।

You might also like
Leave a Comment