সব খবর সবার আগে।

ভরসার আলো দেখাচ্ছে ভারতীয় টিকা! টিকার জন্য ভারতের কাছে আবেদন একাধিক দেশের

দেশে আপাতত করোনার দুটি টিকাকে এমারজেন্সি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। এরপর থেকেই একে পর এক দেশ নজর ভারতীয় টিকার দিকেই। একাধিক দেশ এই টিকাকে নিজেদের দেশে নিয়ে যেতে চাইছে। এরজন্য ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে চিঠি লিখে আবেদন জানিয়েছেন ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি জাইর বোলসোনারো। প্রায় ২০ লক্ষ ডোজ দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। তবে ভারতের পক্ষ থেকে স্থির করা হয়েছেন, আগে প্রতিবেশি দেশগুলিকে টিকা দেবে ভারত। এরপর অন্য দেশগুলিতে যাবে টিকা।

এই অতিমারির মধ্যে সব দেশই এখন টিকার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে। শুধু ব্রাজিলই নয়, মেক্সিকো, মায়ানমার, সৌদি আরব, দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ, এইসব দেশগুলিই ভারতের কাছে টিকার জন্য আবেদন জানিয়েছে। তবে ভারত সরকার স্থির করেছেন যে প্রথমে ভুটান, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, আফগানিস্তানের মতো দেশগুলিতে আগে টিকা সরবরাহ করা হবে।

এই প্রসঙ্গে বিদেশ মন্ত্রালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন যে ভারত প্রথম থেকেই করোনার সঙ্গে লড়াই করে আসছে। এই লড়াইয়ে বিশ্বকে সাহায্য করা ভারতের কর্তব্য। উল্লেখ্য, ভারত সরকার ভারত বায়োটেকের টিকা কোভ্যাকসিন ও DCGI সেরাম ইনস্টিটিউটের টিকা কোভিশিল্ডকে এদেশে এমারজেন্সিভাবে ব্যবহার করার জন্য অনুমোদন দিয়েছে।

ভারতের তৈরি ভ্যাকসিন বেশ প্রশংসিত হয়েছে বিশ্বের দরবারে। সেই তালিকায় রয়েছে চীনও। চীনের কমিউনিস্ট পার্টির মুখপাত্র গ্লোবাল টাইমস বলেছে, ভারতে তৈরি এই করোনা ভাইরাসের টিকা চীনের তৈরি টিকার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। তাদের দাবী, ভারতীয় টিকা গবেষণা ও উৎপাদন ক্ষমতাও প্রায় একই।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...