দেশ

২০টি পথকুকুরের একত্রে হামলা, পাঁচ বছরের বোনকে বাঁচালেও নিজের প্রাণ হারাল বছর আটেকের দাদা

বোনকে যেন নিজের প্রাণ দিয়ে রক্ষা করল সে। বোনকে বাঁচাতে পারলেও নিজের প্রাণ বাঁচাতে পারল না সে। কুকুরের হামলায় মৃত্যু হল বছর আটেকের এক শিশুর। ঘটনাটি ঘটেছে লখনউয়ের ঠাকুরগঞ্জের মুসাহিবগঞ্জ এলাকায়।

জানা গিয়েছে, অন্যান্য দিনের মতোই গতকাল, বুধবার সন্ধ্যাতেও বাড়ির বাইরে রাস্তায় পাঁচ বছরের বোনের সঙ্গে খেলা করছিল বছর আটেকের মহম্মদ হায়দর। দু’জনে যখন খেলায় মশগুল, সেই সময় এক দল পথকুকুর হাজির হয় সেখানে। একসঙ্গে প্রায় ২০টি কুকুর ছিল বলে জানা গিয়েছে। আচমকাই দুই ভাইবোনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে কুকুরের দল।

হঠাৎ এই হামলার মুখে পড়ায় পালাতে পারেনি দুই শিশুর কেউই। চারদিক থেকে তাদের ঘিরে ফেলে কুকুরের দল। হামলার মুখে পড়ে বোন জন্নতকে প্রাণপণে বাঁচানোর চেষ্টা করতে থাকে মহম্মদ। তাদের চিৎকারে পড়শিরা ছুটে এলেও, ততক্ষণে দুই ভাইবোনকে গুরুতর জখম করে ফেলেছে সেই কুকুরের দল।

মহম্মদ ও জন্নতকে জখম অবস্থায় উদ্ধার করে তড়িঘড়ি নিয়ে যাওয়া হয় কেজিএমইউ ট্রমা সেন্টারে। কিন্তু সেখানে নিয়ে গেলে মহম্মদকে মৃত বলে ঘোষণা করে চিকিৎসক। এখনও মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই চলছে জন্নতের।

এই ঘটনার পরেই মুসাহিবগঞ্জে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। মৃত শিশুর পরিবার এবং স্থানীয়দের অভিযোগ, এলাকায় পথকুকুরদের এই বাড়বাড়ন্ত নিয়ে একাধিক বার বার্তা দেওয়া হয়েছে লখনউ পুরনিগমে। মাঝেমধ্যেই কুকুরদের হামলার মুখে পড়তে হয় স্থানীয়দের।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বারবার বলার পরও কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পুরনিগম। পুরনিগমের ৬ নম্বর জোনের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছে মৃতের পরিবার। ঠাকুরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন তারা।

Related Articles

Back to top button