দেশ

উদ্ধব ঠাকরের মহারাষ্ট্রের হাসপাতালে অক্সিজেন ট্যাঙ্কার লিক, অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু ভেন্টিলেশনে থাকা ২২ করোনা রোগীর

মহারাষ্ট্রের নাসিকে মৃত্যু হল ভেন্টিলেটরের থাকা অন্ততপক্ষে ২২ জন করোনা রোগীর। মৃতদের পরিবারের অভিযোগ, অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু হয় রোগীদের। অক্সিজেনের ট্যাঙ্ক লিক করায় ভেন্টিলেটরে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। এর জেরে রোগীদের মৃত্যু হয়। এই বিষয়ে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে জানান যে, অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিকের সঙ্গে মৃত্যুর যোগ থাকতে পারে। তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন বলে আশ্বাস দেন l

আরও পড়ুন-বিরোধীরা কুপোকাত! কোভিড যোদ্ধাদের বীমার মেয়াদ বাড়াল মোদী সরকার

সংবাদসংস্থা এএনআই থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, আজ, বুধবার, নাসিকে জাকির হোসেন হাসপাতালের ট্যাঙ্কারে অক্সিজেন ভর্তির সময় একটি ট্যাঙ্কে লিক ধরা পড়ে। সেই অক্সিজেনের লিকের ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে। ভিডিওতে দেখা যায়, চারিদিক সাদা ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছে। সংবাদসংস্থা পিটিআই-এর খবর অনুযায়ী, করোনা আক্রান্তদের জন্য সেই হাসপাতাল চালাচ্ছিল নাসিক পুরসভা। যে হাসপাতালে ১৫০ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। তাঁদের মধ্যে ২৩ জন ভেন্টিলেটরে ছিলেন। নাসিকের ডিভিশনাল কমিশনার রাধাকৃষ্ণ গামে বলেছেন, “সকাল ১০ টা নাগাদ দুর্ভাগ্যজনক ঘটনাটি ঘটেছে। অক্সিজেন ট্যাক্সের সকেট বিগড়ে গিয়েছিল। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কয়েকজন রোগীকে সরিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু অক্সিজেনের মাত্রা কম থাকায় ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে”।

অক্সিজেন ট্যাঙ্ক লিকের কারণেই মৃত্যু হয়েছে রোগীদের, এমনটাই অভিযোগ মৃতদের পরিবারের। যদিও এই কথা সরাসরি স্বীকার করেননি মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে।
তাঁর কথায়, “আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তাতে নাসিকের হাসপাতালে ভেন্টিলেটরে থাকা ১১ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। যে ট্যাঙ্কে করে ওই রোগীদের অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছিল, তাতে লিক ধরা পড়ে। অক্সিজেনের জোগান ব্যাহত হওয়ার সঙ্গে ১১ জন রোগীর মৃত্যুর যোগ থাকতে পারে”। অপর এক মন্ত্রী রাজেন্দ্র শিংগানে বলেন, “এটা দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, আমরা জানতে পেরেছি যে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আমরা বিস্তারিত রিপোর্ট পাওয়ার চেষ্টা করছি। যাঁরা এই ঘটনার দায়ী, তাঁদের রেয়াত করা হবে না”।

আরও পড়ুন-কত দামে পাবেন করোনা টীকা? হয়ে গেল নির্ধারণ! জানুন বিস্তারিত

এই ঘটনায় ইতিমধ্যে বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়বণীস জানিয়েছেন, “নাসিকে যা হয়েছে, তা মর্মান্তিক। শুনতে পাচ্ছি যে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা অত্যন্ত দুঃসংবাদ। অন্য রোগীদের সাহায্য এবং প্রয়োজনে স্থানান্তরিত করার দাবী জানাচ্ছি। আমরা পূর্ণাঙ্গ তদন্তেরও দাবী তুলছি”।

Related Articles

Back to top button