দেশ

‘ম’দ খাওয়া খারাপ নয়, আমাদের সকলের ম’দ খাওয়া উচিত’, সভার মাঝে বিতর্কিত মন্তব্য করে চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে AAP নেতা

দিল্লি পেরিয়ে এখন পঞ্জাবেও নিজেদের শিকড় শক্ত করেছে আম আদমি পার্টি (Aam Aadmi Party)। এবার তাদের লক্ষ্য গুজরাত। কিন্তু বিতর্ক কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না আপ-এর। বারবার বিতর্কে জড়াচ্ছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের (Arvind Kejriwal) দল। এবার গুজরাতের (Gujarat) এক সভায় ম’দ নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন এক আপ নেতা।

সম্প্রতি আবগারি নীতি নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছে দিল্লি সরকার। অন্যদিকে আবার পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মানকেও সম্প্রতি মত্ত থাকার কারণে তাঁকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে শোনা যায়। আর এবার গুজরাতের আপ নেতাও ম’দ্যপান নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করলেন। এর জেরে আম আদমি পার্টি বেশ চাপের মুখে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যেই সেই ভিডিও বেশ ভাইরাল হয়েছে।

গুজরাতের সোমনাথে একটি জনসভায় আপ নেতা জগমাল ভালা বক্তব্য রাখতে গিয়ে ম’দ্যপান নিয়ে একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করেন, তিনি বলেন, “বিশ্বে ১৯৬টি দেশ এমন রয়েছে যেখানে মদ্যপানে পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে। ভারতের জনসংখ্যা ১৩০ থেকে ১৪০ কোটি। গোটা দেশেই মদ্যপান করা হয়”।

এখানেই শেষ নয়, তিনি আরও বলেন, “কিন্তু গুজরাতে ম’দ্য’পান নিষিদ্ধ, যে রাজ্যে জনসংখ্যা ৬.৫ কোটি। ম’দ খারাপ নয়, আমাদের ম’দ্যপান করা উচিত। শুধু ম’দ যাতে আমাদের গিলে না নেয়, তা মাথায় রাখা উচিত। বড় বড় চিকিৎসক, আইএএস ও আইপিএস অফিসাররাও ম’দ্যপান করেন”।

এই ভিডিও শেয়ার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তুমুল ভাইরাল হয়েছে। আর এই ভিডিওকে কন্দ্র করে উঠেছে নিন্দার ঝড়। এই নিয়ে আম আদমি পার্টিকে তোপ দাগতে ছাড়ে নি বিজেপিও। বিজেপির তরফে বলা হয়েছে, “এটাই সেই দল যারা দিল্লিতে আবগারি নীতি পরিবর্তন করেছে”।

অন্যদিকে, এই ভিডিও সম্পর্কে আপ নেতা যোগেশ জাধভানি অভিযোগ করে বলেছেন যে এই ভিডিওটি এডিট করা। তাঁর দাবী, বিজেপি ইচ্ছাকৃতভাবে এই ভিডিওকে ভাইরাল করেছে। তাঁর কথায়, “বিজেপির ম’দ নিয়ে কথা বলা উচিত নয়। গুজরাতে হাজার কোটি টাকার ম’দ বিক্রি হয়। প্রত্যেক বছর বিষমদ খেয়ে কমপক্ষে ১০০ জনের মৃত্যু হয়। গুজরাতের যুব প্রজন্মকে নেশা করার দিকে বিজেপিই জোর করে ঠেলে দিয়েছে। বিজেপির শাসনে গুজরাতে গুণ্ডারাজ চলছে। আসলে গুজরাটে আম আদমি পার্টির সাফল্য সহ্য করতে পারছে না বিজেপি”।

Related Articles

Back to top button