দেশ

‘ভয় দেখিয়ে লাভ নেই, তৃণমূলকে আটকানো যাবে না’, আগরতলা বিমানবন্দরে বোমাতঙ্ক নিয়ে মুখ খুললেন অভিষেক

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগরতলা বিমানবন্দরে নামার আগেই একটি ব্যাগ নিয়ে তৈরি হল আতঙ্ক। এই ব্যাগটি উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বম্ব স্কোয়াড, সিআইএসএফ। বিমানবন্দর চত্বরে এমন ঘটনাকে ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায়।

তবে এসব কিছুকেই গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন যে তৃণমূলকে ভয় দেখানোর জন্যই এসব করা হচ্ছে।

আজ, সোমবার সাড়ে ন’টা নাগাদ আগরতলার উদ্দেশে রওনা হন অভিষেক। তবে তিনি সেখানে পৌঁছনোর আগেই বিমানবন্দরে একটি কালো ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখা যায়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কনভয় যেখানে রাখা ছিল, ঠিক সেখানেই দেখা যায় এই ব্যাগ।

স্বভাবতই এই ব্যাগকে ঘিরে বেশ আতঙ্ক ছড়ায়। পুলিশে খবর দেওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বম্ব স্কোয়াড ও সিআইএসএফ। পুলিশ কুকুর দিয়ে বিমানবন্দরে তল্লাশি চালানো হয় বলে খবর।

এই পরিস্থিতিতে আজ দশটা বেজে পনেরো মিনিট নাগাদ আগরতলা বিমান বন্দরে নামেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকেই ত্রিপুরা সরকারকে তীব্র তোপ দাগেন তিনি। বোমাতঙ্ক প্রসঙ্গেও তিনি কথা বলেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বিমানবন্দরে ব্যাগ ঘিরে বোমাতঙ্ক ছড়িয়েছে। এসব করে ভয় দেখিয়ে তৃণমূলকে আটকানো যাবে না। আমার সঙ্গে শত্রুতা থাকলে আমার গাড়ি উড়িয়ে দিন বোম মেরে। কিন্তু সাধারণ মানুষের উপর কেন এত রাগ? বিমানবন্দরে কেন এমন আচরণ”?

সংবাদমাধ্যমকে আক্রমণ নিয়েও এদিন তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বোমাতঙ্ক নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুও বলেন যে ভয় দেখানোর জন্যই বিজেপির তরফে এসব করা হচ্ছে। কিন্তু এতে কোনও লাভ হবে না।

প্রসঙ্গত, গতকাল, শনিবার ত্রিপুরার চৌমুহনীতে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের উদ্দেশে তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষ ‘খেলা হবে’ বলে স্লোগান তোলেন। এমনকি, তিনি মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে কটু কথা বলেন বলেও অভিযোগ। এর জেরে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এই ঘটনাকে ঘিরে ত্রিপুরা এমনিতেই উত্তপ্ত ছিল। আর আজকের এই বোমাতঙ্কে সেই উত্তাপ আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button