সব খবর সবার আগে।

অভিন্নতার স্বার্থে সরকার পরিচালিত সমস্ত মাদ্রাসাকে সাধারণ স্কুলে পরিবর্তনের ঘোষনা ‘অসম চাণক্য’-এর!

বড় সিদ্ধান্তের পথে অসম সরকার (Assam government)। রাজ্যের সমস্ত সরকার পরিচালিত মাদ্রাসাকে (Madrasa) সাধারণ স্কুলে রূপান্তরিত করা হবে বলে শনিবার ঘোষণা করেছেন অসমের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা (Himanta Biswa Sarma)। যিনি আবার অসম রাজনীতিতে অসমের ‘চাণক্য’ হিসেবেও লোকসমাজে পরিচিত।

শনিবার নিজের ঘোষনায় তিনি বলেন তিনি বলেন, ‘‘আমরা মাদ্রাসা বোর্ড ভেঙে দেব। সাধারণ স্কুল ও মাদ্রাসার মধ্যে অনুদানের সমতা রাখার বিজ্ঞপ্তি তুলে নেওয়া হবে। এবং আমরা সমস্ত সরকারি মাদ্রাসাকে সাধারণ স্কুলে রূপান্তরিত করব।’’

প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য, সম্প্রতি হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানিয়েছিলেন, সরকারি অর্থে মাদ্রাসায় কোরান শিক্ষা চলতে দেওয়া হতে পারে না। তিনি বলেন, যদি কোরান পড়ানোর জন্য সরকার অর্থ খরচ করে, তাহলে বাইবেল ও ভগবৎ গীতাও পড়াতে হবে। তিনি বলেন, ‘‘আমরা অভিন্নতা আনতে এই অভ্যাসটি বন্ধ করতে চাই।’’ তবে কোপ শুধু মাদ্রাসার ওপরেই পড়ছে না। সরকারের তরফে বন্ধ করে দেওয়া হবে অসম সরকার পরিচালিত সমস্ত সংস্কৃত টোল গুলিও বলে জানিয়েছেন তিনি।

নিজের বক্তব্যে হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, ‘‘বেসরকারি মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা নেই। আমরা তাতে নিয়ন্ত্রণ আনব। বিজ্ঞান ও অঙ্ক পড়াতে হবে। রাজ্যের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে। সাংবিধানিক নির্দেশকে সম্মান করতে হবে। তবে তা মাদ্রাসাই থাকবে।’’ কয়েকদিন আগেই তিনি জানিয়েছিলেন, জনগণের অর্থে কোনও ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চলতে পারে না। এই মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি হতে চলেছে।

তবে বিজেপি শাসিত রাজ্যে মন্ত্রীর বক্তব্যের বিরোধিতা করে নিজের প্রতিক্রিয়ায় AIUDF নেতা তথা সাংসদ বদরুদ্দিন আজমল জানিয়ে দেন, যদি বিজেপি সরকার মাদ্রাসাগুলি বন্ধ করে দেয় তাহলে আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনে জিতে তাঁর দল আবার তা চালু করবে। তিনি বলেন, ‘‘আপনারা মাদ্রাসা বন্ধ করতে পারবেন না। বর্তমান সরকার যতই জোর করে তা বন্ধ করুক না কেন, আমরা ৫০-৬০ বছরের এই মাদ্রাসাগুলি ফের চালু করব।’’

প্রসঙ্গত, অসমে মোট ৬১৪টি সরকার পরিচালিত মাদ্রাসা রয়েছে। বেসরকারি মাদ্রাসার সংখ্যা প্রায় ৯০০। সেগুলির প্রায় সব ক’টিই জামিয়াত উলেমা দ্বারা পরিচালিত। এদিকে সরকারি টোল রয়েছে প্রায় ১০০টি।

You might also like
Comments
Loading...
Share