সব খবর সবার আগে।

আঘাত ফেরালো বিজেপি! কংগ্রেস আমলের ‘জরুরি অবস্থা’ নিয়ে অমিত নিশানায় গান্ধীরা!

দেশীয় বিভিন্ন কারণেই নিত‍্যদিন‌ই ঝামেলা লেগেই থাকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির মধ‍্যে। করোনাভাইরাস হোক বা লকডাউন, ভারত-চীন সংঘর্ষ হোক বা পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস নিত‍্যদিন‌ই আক্রমণ করে চলেছে শাসককে। কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধীর তো রোজকার কাজ হয়ে উঠেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করা।

একের পর এক প্রশ্নবানে বিদ্ধ করে চলেছেন শাসকদল বিজেপিকে। সোনিয়া গান্ধী, কপিল সিব্বালের মত প্রথম সারির নেতারাও কিন্তু পিছিয়ে নেই। সহ্যসীমা পেরিয়ে যাওয়ায় এবার সেই সব কংগ্রেস নেতাদের বিরুদ্ধে রীতিমত আক্রমণাত্মক মেজাজে সোশ্যায় মিডিয়ায় তোপ দাগলেন বিজেপি নেতা ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

বৃহস্পতিবার অমিত শাহ সোশ্যাল মিডিয়ায় কংগ্রেস আমলে হওয়া জরুরি অবস্থা নিয়ে রীতিমতো কটাক্ষ করেন কংগ্রেসকে। তিনি বলেন, ভারতের একটি বিরোধী রাজনৈতির দল কংগ্রেস এবার নিজেকে প্রশ্ন করুক, কেন‌ও জরুরি অবস্থার মানসিকতা থেকে যায়? কেন‌ও দলের কোনও নেতা যারা রাজবংশের সদস্য নন তাঁরা কোনও মন্তব্য করতে পারেন না?কংগ্রেসের নেতারা হতাশ হচ্ছেন কেন‌ও? অন্যথায় মানুষের সঙ্গে তাঁদের দূরত্ব আরও বৃদ্ধি পাবে।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন গান্ধী পরিবারকেই রাজপরিবার বলে বুঝিয়েছেন তিনি। অমিতের আরও অভিযোগ গান্ধী পরিবারের জন্যই কংগ্রেসের অন্যান্য নেতারা উঠে আসতে পারেন না। কারণ দিন কয়েক আগেই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরুর সমালোচনা করায় কংগ্রেস মুখপাত্রের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে  সঞ্জয় ঝাকে। সরাসরি নাম না করে এই বিষয়টিকেই হাতিয়ার করেন অমিত শাহ। গতকাল ঠিক এই ভাষাতেই বিজেপি নেতা জেপি নাড্ডা আক্রমণ করেছিলেন কংগ্রেসকে।

আজ জরুরি অবস্থার ৪৫তম বর্ষ। আর বেছে বেছে এই দিনটিকেই হাতিয়ার করে বিজেপি আরও একবার কংগ্রেসের বিরুদ্ধে।

You might also like
Leave a Comment