সব খবর সবার আগে।

জম্মু-কাশ্মীরে জমি কিনতে পারবেন যে কোনও ভারতীয়, বড় পদক্ষেপ মোদী সরকারের

জমি আইনে এবার বড়সড় পরিবর্তন আনল কেন্দ্র সরকার। এখন থেকে যে কোনও ভারতীয় চাইলে জম্মু-কাশ্মীরে আইনি পদক্ষেপ করে জমি কিনতে পারবেন। কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি জারি করে এমনটাই জানানো হয়েছে।

কাশ্মীর মাত্রই সুন্দর, পৃথিবীর স্বর্গ সে। এমন জায়গায় বসবাস করতে কে না চায়। কিন্তু এতদিন পর্যন্ত তা সম্ভবপর ছিল না ৩৭০ ধারা জারি থাকার কারণে। কিন্তু এবার মোদী সরকারের ৩৭০ ধারা নিয়ে এমন ঘোষণার পর উপত্যকায় জমি-বাড়ি কেনা অনেকটাই সহজতর হতে চলেছে।

কেন্দ্রের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে এই অর্ডার সংশোধন হওয়ার পরই কার্যকর করা হবে। দেশের অন্য কোনও দেশে জমি কিনতে গেলে যে সমস্ত আইনের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়, কাশ্মীরে জমি কিনতে হলে সে সব আইনি ধারাই গ্রহণ করা হবে। কেন্দ্র সরকার ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পরই কাশ্মীরে জমি কেনা নিয়ে আর কোনও বাধা রইল না।

২০১৯ সালে আগস্ট মাসেই জম্মু-কাশ্মীরকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে কেন্দ্রও। একটি জম্মু কাশ্মীর ও অপরটি লাদাখ। এরপরই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাজ্যসভায় জানান যে, কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে নেওয়া হচ্ছে। এও জানানো হয় যে, জম্মু কাশ্মীরের মহিলারা এই অঞ্চলের বাইরেও যে কোনও বাসিন্দাকে বিয়ে করতে পারবেন। ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখে কার্ফু জারি করা হয়। আবার পরে সময়মত তা প্রত্যাহারও করে নেওয়া হয়।

এই ৩৭০ ধারা নিয়ে অমিত শাহ বলেন যে, ৩৭০ ধারা এতদিন কাশ্মীরের মানুষের ক্ষতিসাধন করেছে, রাজ্যে দুর্নীতি বেড়েছে, উন্নয়নও থমকে গিয়েছে। এমনকি, এই ধারার ফলে ওই রাজ্যে শিক্ষাব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে এমনই অভিযোগ করেন অমিত শাহ। ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার আখেরে কাশ্মীরের মানুষের উপকার সাধনই করবে বলেন জানিয়েছিলেন তিনি।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...