দেশ

ডাস্টবিন থেকে খাবার কুড়িয়ে চলে জীবন, রাম মন্দির নির্মাণে সঞ্চয় দান ঝাড়খণ্ডের ভিকারির

ধর্মপ্রাণ এই ভারতে বিচিত্র মানুষের খোঁজ মাঝেমধ্যেই মেলে। তবে রাম মন্দির নির্মাণ কে কেন্দ্র করে এই ধরনের মানুষের হদিশ একটু বেশিই পাওয়া যাচ্ছে।

উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় নির্মিত হচ্ছে হিন্দু ধর্মের সবচেয়ে বড় মন্দির ‘রাম মন্দির’। বর্তমানে এই মন্দির নির্মাণের জন্য অনুদান গ্রহণ চলছে। ১০,৫০, ১০০০ নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী আপনি দান করতে পারেন। কিন্তু কোনও সংস্থা বা কর্পোরেট হাউসের থেকে এই মন্দির নির্মাণের জন্য কোনও অর্থ নেওয়া হবে না বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল l

ব্যক্তিগতভাবে হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে এই মন্দির নির্মাণের যে কেউই সাহায্য করতে পারে।

কিছুদিন আগেই সবাইকে অবাক করে এই মন্দির নির্মাণে এক কোটি টাকা দান করেন ৮৩ বছরের গুহাবাসী এক সাধু।

আর এবার অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের নিজের ব্যক্তিগত সঞ্চয় দিয়ে দিলেন এক ভিক্ষা করে দিন গুজরান করা মহিলা।  ঝাড়খণ্ড থেকে এরকমই এক রাম ভক্তের খবর মিলেছে। ডাস্টবিন ঘেঁটে যাঁর জীবন কাটে রামের প্রতি তাঁর ভক্তি অবাক করেছে দেশবাসীকে। রাম মন্দির নির্মাণে অনুদান হিসেবে ২৪২৫ টাকা দান করেছে সে।

সূত্রের খবর, রাম মন্দিরের জন্য চাঁদা দেওয়া ওই ভিক্ষুক ঝাড়খণ্ডের রামগড় জেলার লেপ্রোসি কলোনির আশেপাশের বাসিন্দা। সেখানকার এক বাসিন্দা জানান, ভিখারিরা রোজ ভিক্ষা চায় আর ডাস্টবিনের মধ্যে জীবন যাপন করে। ওই কলোনিতে চাঁদা নিতে যাওয়া রাম মন্দির নির্মাণ সমিতির সদস্যদের হাতে ২৪২৫ টাকা তুলে দেন এই ভিখারি।

Related Articles

Back to top button