সব খবর সবার আগে।

চাকরি ও আর্থিক উন্নতির দিক দিয়ে সেরা শহর বেঙ্গালুরু, সবথেকে খারাপ অবস্থা কলকাতার, নীতি আয়োগের সমীক্ষায় চাঞ্চল্যকর তথ্য

শহরের বাসিন্দাদের চাকরি প্রদান ও আর্থিক সমৃদ্ধির দিক দিয়ে কার্যত মুখ থুবড়ে পড়ল কলকাতা। নিজের লক্ষ্যপূরণে ব্যর্থ এই শহর। শুধু কলকাতাই নয়, দেশের সমস্ত বড় বড় শহরগুলির অবস্থাই একইরকম। তবে এর মধ্যে ব্যতিক্রম বেঙ্গালুরু। সম্প্রতি, নীতি আয়োগের রিপোর্টে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।

দেশের ৫৬টি শহরে এক সমীক্ষা চালায় নীতি আয়োগ। সেই সমীক্ষার রিপোর্টেই উঠে এল এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেশের নানান বড় বড় শহরগুলি চাকরির সুযোগ করে দিতে একরকম ব্যর্থ হয়েছে। বেঙ্গালুরু ছাড়া আর শহরই নিজেদের লক্ষ্যে পৌঁছতে পারছে না। ১০০-এর মধ্যে বেঙ্গালুরু স্কোর হল ৭৯। অন্যদিকে, কলকাতার স্কোর মাত্র ৩।

হতাশ করেছে বাণিজ্যিক শহর মুম্বইও। তাদের স্কোর মাত্র ১৭। অন্যদিকে রাজধানী দিল্লি এই সমীক্ষায় ১০০-এর মধ্যে পেয়েছে মাত্র ৪৩ পয়েন্ট আর চেন্নাইয়ের ঝুলিতে রয়েছে ৩৬। অর্থাৎ দেশের সমস্ত মহানগরীই চাকরি প্রদান ও আর্থিক উন্নতির দিক দিয়ে মুখ থুবড়ে পড়েছে।

২০১৫ সালে রাষ্ট্রপুঞ্জের তরফে ১৭ SDG নামক একটি পরিকল্পনা নেওয়া হয়। এর উদ্দেশ্য ছিল সারা বিশ্বের দারিদ্র‍্য দূরীকরণ৷ রাষ্ট্রপুঞ্জের সেই ১৭ SDG পরিকল্পনা মাফিক এই সমীক্ষা চালিয়েছে নীতি আয়োগ। এই ১৭টি Sustainable Development Goals বা SDG এর অন্তত আটটি সুঠাম অর্থনৈতিক কাঠামো ও চাকরি প্রদানের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে।

নীতি আয়োগের এই সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে যে করোনা অতিমারি পরবর্তী সময়ে কার্যত ধুঁকছে দেশ। ৫৬টি শহরের মধ্যে মাত্র ১৩টি শহর ৫০-এর উপর স্কোর করতে পেরেছে।

সার্বিকভাবে ১৭টি SDG মিলিয়ে দেশের Sustainable Development ধরে রাখায় শীর্ষে হিমাচল প্রদেশের রাজধানী সিমলা। এর সংগ্রহে রয়েছে ৭৬ পয়েন্ট। তিন পয়েন্ট পিছনে তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটোর। চমক কেরালার। প্রথম পাঁচের মধ্যে তিনে ত্রিবান্দ্রম এবং পাঁচে কোচি। সবথেকে শেষে রয়েছে ঝাড়খণ্ডের ধানবাদ।

You might also like
Comments
Loading...