দেশ

‘কৃষি বিভাগের সব দফতরেই চুরি হয়, আমিই চোরদের সর্দার’, ভরা মঞ্চে সদম্ভে বললেন কৃষিমন্ত্রী, প্রবল অস্বস্তিতে সরকার

নানান দুর্নীতির জেরে এমনিতেই বিদ্ধ পশ্চিমবঙ্গ সরকার। নানান দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছে নানান নেতার। তবে এবার বাংলার সরকার নয়, এবার অস্বস্তিতে পড়লেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী  নীতীশ কুমার (Nitish Kumar)। ভরা জন্সভায় দুর্নীতির কথা স্বীকার করলেন বিহারের মহাজোট সরকারের কৃষিমন্ত্রী সুধাকর সিং (Sudhakar Singh)। তিনি বলেন যে কৃষি বিভাগের সব দফতরেই চুরি হয়।

গতকাল, সোমবার কাইমুর জেলায় একটি জনসভায় বক্তব্য রাখেন কৃষিমন্ত্রী সুধাকর সিং। সেখানে তিনি বলেন, “কৃষিবিভাগে এমন একটিও দফতরে নেই যেখানে চুরি হয় না। আর যেহেতু এই কৃষি দফতরের প্রধান আমি। তাই আমি চোরেদের সর্দার। তবে আমার মাথার উপরে আরও অনেকে রয়েছেন”।

তাঁর এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। গত মাসেই বিজেপির সঙ্গে জোট ভেঙেছে নীতীশ কুমারের জেডিইউ। এরপর নীতীশ কংগ্রেস ও আরজেডি-কে নিয়ে মহাজোট গঠন করেন। এরপর থেকেই বিজেপি অভিযোগ করেছে যে মসনদ পাওয়ার লোভেই আরজেডি-র মতো দুর্নীতিতে ভরা দলের সঙ্গে জোট বেঁধেছে নীতীশ কুমার। আর এমন পরিস্থিতিতে সুধাকর সিংয়ের বক্তব্য নতুন করে নীতীশ কুমারের অস্বস্তি বাড়াল।

প্রসঙ্গত, নীতীশ কুমারের কৃষিমন্ত্রী তথা আরজেডি বিধায়ক সুধাকর সিংয়ের বিরুদ্ধে বেআইনি ভাবে সরকারি চাল খোলাবাজারে বিক্রি করার পুরনো একটি মামলা ঘিরে নতুন করে বিতর্ক দানা বেঁধেছে। আরজেডির রাজ্য সভাপতি তথা প্রভাবশালী রাজপুত নেতা জগদানন্দ সিংয়ের ছেলে সুধাকর সিং।

২০১৩ সালে চাল চুরির মামলা নিয়ে ইতিমধ্যেই সুধাকর সিংয়ের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিরোধীরা। আর ঘটনাচক্রে সেই সময় আরজেডি-র সুধাকর সিংয়ের বিরুদ্ধেই অভিযোগ দায়ের করেছিল তৎকালীন নীতীশ কুমারের প্রশাসন। তাই এখন স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে যার বিরুদ্ধে এক সময় নীতীশের পুলিশ চাল চুরির জন্য অভিযোগ দায়ের করেছিল, তাঁকেই এখন নীতীশ কৃষিমন্ত্রী করলেন কীভাবে?

Related Articles

Back to top button