সব খবর সবার আগে।

“এত প্রেম আসে কোথা থেকে?” মহা আরতির সঙ্গে আজানের তুলনা করায় শিব সেনার নেতাকে প্রশ্ন বিজেপি নেতার

ফের মহারাষ্ট্রে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। গতকাল, সোমবার, আজানের প্রসঙ্গ নিয়ে মহারাষ্ট্রে ক্ষমতায় থাকা মহাজোটের সঙ্গে বিজেপি নেতার বাক বিতর্ক নিয়ে পরিস্থিতি তুঙ্গে।

ঘটনার শুরু শিবসেনা দক্ষিণ মুম্বইয়ের প্রধান পাণ্ডুরঙ্গ সপকালের একটি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে। সম্প্রতি, সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় সপকাল আজানের বিশেষত্ব তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আজান শুধু পাঁচ মিনিটের হয় কিন্তু তা মহা আরতির মতোই গুরুত্বপূর্ণ। আজান শান্তি ও প্রেমের প্রতীক। তিনি এও বলেন, গীতা প্রতিযোগিতার মতো আজানের প্রতিযোগিতাও হওয়া উচিত। মুসলিম বাচ্চাদের তিনি যে মুম্বইয়ের একটি এনজিও-কে আজান প্রতিযোগিতা করানোর জন্য পরামর্শ দিয়েছেন, এও বলেন সপকাল।

শিব সেনা নেতার এই মন্তব্যেই ঘোর আপত্তি বিজেপি নেতা অতুল ভতকলকরের। সপকালের এই মন্তব্যে বিস্ময় প্রকাশ করে তিনি বলেন, বালাসাহেব ঠাকরের যে দল রাস্তায় নেমে নামাজ পড়া নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিল একসময়, আজ তারাই আজান নিয়ে এত কথা বলছে। তাদের হঠাৎ এত প্রেম কী করে এল?

এদিকে সপকাল বলেন, “আমি মেরিন লাইনের কবরস্থানের পাশে থাকি। রোজ আজান শুনি। এটি বেশ অদ্ভুত আর মনমোহক হয়। যে একবার শুনবে, সে দ্বিতীয়বার এটা শোনার জন্য অপেক্ষা করবে। আর এটা নিয়েই আজান প্রতিযোগিতার কথা মাথায় আসে”।

মহারাষ্ট্র সরকারের সহযোগী দল এনসিপি ও কংগ্রেস সপকালের এই মন্তব্যকে সমর্থন করেছে। এনসিপি মুখপাত্র নবাব মালিক বলেছেন, গীতা পাঠের প্রতিযোগিতা মহারাষ্ট্রের অনেক জায়গাতেই হয়। সেখানে মুসলিম মেয়েরাও পুরস্কার জিতেছে। তাহলে আজান প্রতিযোগিতায় ভুল কোথায়?

অন্যদিকে, কংগ্রেস মুখপাত্র সচিন সাওয়ান্ত বলেন, “যাদের মনে ঘৃণা আছে, তাঁরা কখনো মানুষ আর ভগবানের মধ্যে সম্পর্ককে বুঝতে পারবে না। এটি একটি ভালো কাজ, এর জন্য সবাইকে উৎসাহিত করা উচিত”।

You might also like
Comments
Loading...