সব খবর সবার আগে।

এবছর থেকে নেতাজির জন্মবার্ষিকীর দিন থেকেই শুরু হবে সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপন, ঘোষণা মোদী সরকারের

এবার থেকে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন অর্থাৎ ২৩শে জানুয়ারি থেকেই সাধারণতন্ত্র দিবসের উদযাপন শুরু হয়ে যাবে, এমনটাই জানানো হল কেন্দ্র সরকারের তরফে। নেতাজিকে সম্মান জানাতেই রি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এতদিন পর্যন্ত ২৪শে জানুয়ারি থেকে সরকারি অনুষ্ঠান শুরু হত সাধারণতন্ত্র দিবসকে ঘিরে। এছাড়াও নেতাজি জয়ন্তীরও আলাদা অনুষ্ঠান হত। ২৩শে জানুয়ারি দিনটিকে পরাক্রম দিবস হিসেবে পালন করা হয় মোদী সরকারের তরফে।

সরকারি সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারতের ইতিহাস ও সংস্কৃতিকে নতুন করে বিশেষভাবে উদযাপন ও স্মরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। এর জন্যই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনের দিন অর্থাৎ ২৩শে জানুয়ারি থেকেই সাধারণতন্ত্র দিবসের আনুষ্ঠানিক উদযাপন শুরু করতে চাইছে কেন্দ্র।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, আরও বেশ কয়েকটি দিবসকে সারাবছর ধরে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। এর বেশ কয়েকটি দিবস গত কয়েক বছর ধরেই পালিত হয়ে আসছে।

এই দিবসগুলির মধ্যে রয়েছে ১৪ই অগস্ট দেশভাগ স্মরণ দিবস, ৩১শে অক্টোবর জাতীয় ঐক্য দিবস (যা পালন করা হয় সর্দার পটেলের জন্মদিনে), ১৫ই নভেম্বর জনজাতি গৌরব দিবস (যা পালন করা হয় বিরসা মুণ্ডার জন্মদিনে), ২৬শে নভেম্বর সংবিধান দিবস এবং ২৬শে ডিসেম্বর বীর বাল দিবস (গুরু গোবিন্দ সিংয়ের চার ছেলেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় এই দিনে)।

এর আগে কেন্দ্রের তরফে সারা দেশে নেতাজির স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলিকে নিয়ে আলাদা করে কিছু করার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। ২০২১ সালে ২১শে অক্টোবর আজাদ হিন্দ সরকার গঠনের বার্ষিকীতে কেন্দ্রের পর্যটন মন্ত্রক কিউরেটেড ট্যুরের পরিকল্পনার কথা জানায়।

সেই সময় পর্যটন মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানান, “স্থানগুলিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই বিশেষ পর্যটনে একাধিক পথ অন্তর্ভুক্ত করা হবে। আমরা নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সঙ্গে সংযুক্ত গন্তব্যগুলির মানচিত্র তৈরি করে কিউরেটেড ভ্রমণপথ তৈরি করেছি। নেতাজি স্মৃতিবিজরিত পর্যটনস্থলগুলিকে জনপ্রিয় করে তুলতে উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের”।

You might also like
Comments
Loading...