সব খবর সবার আগে।

China Pulls Back Army: লাদাখ থেকে কয়েক হাজার সেনা ফেরাতে বাধ্য হল চীন, নেপথ্যে হাড়কাঁপানো ঠাণ্ডা

লাদাখের পাহাড় চূড়া থেকে প্রায় ১০ হাজার সেনা ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হিল চীনের পিপলস্‌ লিবারেশন আর্মি। প্রচণ্ড, হাড়কাঁপানো শীতে এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয় তারা। তবে দেশের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে এখনও অব্যাহত রয়েছে চীনা সেনা।

সূত্রের পাওয়া খবর অনুযায়ী, লাদাখের প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় থাকা অভ্যাস নেই চীনা সেনাদের। এই কারণেই সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত। তবে বর্তমানে ওই এলাকায় ভারত ও চীন মিলিয়ে মোট প্রায় এক লক্ষের কাছাকাছি সেনা মোতায়েন করা রয়েছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা ছাড়াও লাদাখের ভিতরেও মোতায়েন রয়েছে সেনা ও অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র। এই বিষয়ে নর্দার্ন আর্মি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডিএস হুডা জানিয়েছেন, প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় বড় সংখ্যায় তো দূর, স্বল্পকালীন সেনা অপারেশনও সম্ভব নয়।

জানা গিয়েছে, গত সাত থেকে দশ দিনের মধ্যেই এই ১০,০০০ সেনা সরিয়েছে চীন। তবে লাদাখ পরিস্থিতির উপর তীক্ষ্ণ নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় সেনা। তাঁদের ধারণা, এই এলাকায় ফের সেনা মোতায়েন করতে পারে চীন।

ভারত- চীনের সংঘর্ষ ও লাদাখের অচলাবস্থার প্রায় নয় মাস কেটে গিয়েছে। একাধিকবার এই বিষয়ে আলোচনা বৈঠক করেও কোনও ফল মেলেনি। একে অপরের দিকে চোখ রাঙিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে ভারতীয় ও চীনা সেনা।

এই অবস্থায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে গতকাল সোমবার লাদাখে ২দিনের সফরে গিয়েছেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত। কাশ্মীরের সংবেদনশীল এলাকাগুলি ঘুরে দেখবেন তিনি। গতকালই ভারতীয় বায়ু সেনা প্রধান এয়ার চিফ মার্শাস আরকেএস ভাদুড়িয়ার সঙ্গে পূর্ব লাদাখ ঘুরে এসেছেন তিনি।

এর আগেও গত ২ ও ৩রা জানুয়ারি অরুণাচল প্রদেশে গিয়ে সীমান্তের দায়িত্বে থাকা সেনাকর্মীদের সঙ্গে কথাবার্তা বলেন রাওয়াত। তাঁর কথায় কোনও শক্তিই ভারতীয় সেনাকে প্রতিহত করতে পারবে না। ভারতীয় সেনারা যে প্রতিকুল অবস্থার মুখোমুখি হয়ে কাজ করেন, তা আর কোনও দেশের সেনা করেন না বলেই দাবী করেন তিনি।

You might also like
Comments
Loading...