সব খবর সবার আগে।

Pulwama Day: ভারতের ইতিহাসে কালো দিবস! পুলওয়ামা’র শহিদদের আত্মবলিদানের কাহিনীতে চোখ ভিজল গোটা দেশের

আজ ভ্যালেন্টাইনস ডে। আনন্দের দিন। চারিদিকে ফুলের গন্ধে ছেয়ে থাকার দিন। আজ ভালোবাসাদের নিজেদের মেলে ধরার দিন। কিন্তু আজকের দিনে দেশমাতার চোখে জল। কাঁদছে গোটা দেশ। আজ যেমন ভালোবাসার দিন, তেমনই অন্যদিকে আজ পুলওয়ামা দিবস। ভারতের ইতিহাসে কালো দিন। আনন্দ-দুঃখ, যন্ত্রণা-হাসি সব যেন কেমন মিশে গিয়েছে এই দিনে।

আজ পুলওয়ামার ঘটনার ২ বছর হল। কিন্তু আজও সেদিনের ক্ষত দগদগে হয়ে রয়েছে। মনে পড়লেই কেমন যেন শিউড়ে উঠতে হয়। ভালোবাসার দিনের মতো এমন এক সুন্দর দিনে, পুলওয়ামার ঘটনাটা যেন চিরজীবন কলঙ্কের মতো হয়েই থেকেই যাবে। এদিন একটি ভিডিও শেয়ার করল ভারতীয় সেনা। এ ভিডিও গোটা দেশকে ফের একবার কাঁদাল। শহিদ সেনাদের আত্মবলিদানের কাহিনী ছড়িয়ে পড়ল গোটা দেশে।

এই ভিডিওতে একটি চার লাইনের কবিতা রয়েছে, তা হল-

বিঠাকর পাস বচ্চো কো জো কল কিস্সে শুনাতা থা,
উসে কিসসা বনানে কো, ক্যায়া জায়জ ইয়ে ধমাকা থা?
পহুচা ঘর জো উসকে থা বো তাবুত থা খালি,
উঠা জো উসকে চৌখট সে বহুত ভারি জনাজা থা।

এই চার লাইনের কবিতার ভিডিওর শেষে যেন শোক ছড়িয়ে পড়ল। আত্মবলিদান দেওয়া শহিদ সেনাদের বীরগাঁথা দেশের আকাশে বাতাসে যেন মিশে গেল। পুলওয়ামা হামলায় শহিদদের কথা মনে করে আরও একবার চোখ ভিজল দেশবাসীর।

সিআরপিএফ কনভয়ে হামলাকারী জঙ্গি আদিল আহমেদ নিজের বাড়ির থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে এই ঘটনা ঘটায়। এই ঘটনায় শহিদ হন ৪০ জন জওয়ান। এদিন ২০১৯ সালের এই ঘটনার কথা উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন যে ভারতীয় শহিদদের এও আত্মবলিদানের কথা দেশ কখনও ভুলবে না। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং থেকে শুরু করে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী, সকলেই নিজের বক্তব্যে পুলওয়ামার ঘটনায় শহিদদের বীরত্ব ও সাহসিকতার কথা উল্লেখ করেন। এদিনের ঘটনার কথা স্মরণে রেখে আরও একবার চোখ ভিজল দেশের।

You might also like
Comments
Loading...