সব খবর সবার আগে।

লক্ষ্য অসমও, তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা সে রাজ্যের কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদের, তুঙ্গে জল্পনা

তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন অসমের কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদ কিরিপ চালিহা। এমনই গুঞ্জন উঠেছে এবার রাজনৈতিক মহলের অন্দরে। দিল্লিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সফর চলাকালীন তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেন কিরিপ চালিহা। এরপর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে যে অসমেও তৃণমূলের আধিপত্য বিস্তার করতে কিরুপ চালিহাকে দলে নেওয়া হতে পারে।

কিছু বছর আগেই অসমে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের মধ্যেই নাম নেওয়া হত কিরিপ চালিহার। তবে দলের সঙ্গে ইদানিং তাঁর দুরত্ব বেড়েছে। এই কারণে কংগ্রেস কমিটি থেকে ইস্তফা দেওয়ার আবেদনও জানান তিনি। কিন্তু তাঁর সেই আবেদন গৃহীত হয়নি। তবে এবার কিরিপ সিদ্ধান্ত নিয়েই নিয়েছেন যে তিনি ঘাসফুলেই যাবেন।

আরও পড়ুন- প্রথমেই ‘খেলা’য় বাধা, আগরতলায় লাগাতে দেওয়া হল না তৃণমূলের পতাকা, ভিডিওয় ক্ষোভ জাহির দেবাংশুর

সূত্রের খবর অনুযায়ী, কিরিপ নিজে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কথা ভাবছেন। তবে এই বিষয়ে এখনই চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না তিনি। তিনি তৃণমূলে যোগ দিতে চান বলেই যে মমতার সঙ্গে বৈঠক করছেন, তা নিশ্চিত।

এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে কিরিপ বলেন, “এখনই যোগদানের বিষয়টি নিয়ে কিছু বলতে চাই না। তবে অসমের বহু মানুষ যাঁরা দীর্ঘ দিন কংগ্রেস করে এসেছেন, তাঁরা সনিয়াজির নেতৃত্বে যতটা স্বচ্ছন্দ রাহুলের সঙ্গে ততটা নন। তাঁরা মনে করেন কংগ্রেস জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপি-র বিকল্প হয়ে উঠতে পারেনি। আমি মমতাজির সঙ্গে দেখা করে বলেছি, আপনি এখন কেবল বাংলার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে সর্বভারতীয় রাজনীতিতে এগিয়ে আসুন। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজনীতিতে আমরা আপনাকে সাহায্য করব”। কিরিপের কথায়, “আমরা মনে করি যে ২০২৪ সালে মমতাই পারবেন মোদীকে হারাতে”।

আরও পড়ুন- মূল অভিযুক্তের আইনজীবীর সঙ্গে হাইকোর্টের বিচারপতির গোপন বৈঠক, বিচারব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন শুভেন্দুর

তৃতীয়বারের জন্য বাংলার একচ্ছত্র জয়ের পর এবার তৃণমূলের লক্ষ্য দিল্লির মসনদ। সেকথা দলের তরফে খোলসা করে বলা না হলেও, দলের নানান কার্যকলাপে তা ভালোই স্পষ্ট। ইতিমধ্যেই ভিন্ন রাজ্যে সংগঠন দৃঢ় করতে উঠে পড়ে লেগেছে ঘাসফুল শিবির। এর শুরু ত্রিপুরা রাজ্য দিয়েই। আজই সেখানে পৌঁছেছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও অসমকেও লক্ষ করছে তৃণমূল। এই কারণে কিরিপ ছাড়াও আরও এক নির্দলীয় সাংসদকেও দলে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে জোড়া ফুল শিবির।

You might also like
Comments
Loading...