দেশ

হিন্দু মহাসভার প্রকাশিত ক্যালেন্ডারে মক্কা হল মক্কেশ্বর মহাদেবের মন্দির, কুতুব মিনার হয়ে গেল বিষ্ণু স্তম্ভ, শুরু বিতর্ক

হিন্দু মহাসভার আলীগড় শাখার তরফে প্রকাশিত করা হয়েছে হিন্দু নববর্ষের ক্যালেন্ডার। এই নতুন ক্যালেন্ডারে তাজমহল ও অন্য বেশ কিছু মসজিদ ও মুঘল আমলের স্মৃতিস্তম্ভকে মন্দির বলে বর্ণনা করা হয়েছে।

এই ক্যালেন্ডারে মুসলিমদের সবথেকে বড় তীর্থস্থান মক্কাকে অভিহিত করা হয়েছে মক্কেশ্বর মহাদেব মন্দির বলে। এও উল্লেখ করা হয়েছে যে এক সময় সেখানে শিবমন্দির। এই বার্তাও স্পষ্টভাবে দেওয়া হয়েছে এই ক্যালেন্ডারে। এও বলা হয়েছে যে এই কারণেই সেখানে শিবলিঙ্গ এখনও খণ্ডিত অবস্থায় রয়েছে।

নতুন এই ক্যালেন্ডারে অযোধ্যায় ভেঙে পড়া বাবরি মসজিদকে দেখানো হয়েছে ভগবান শ্রী রামের জন্মস্থান হিসেবে। বলা হয়েছে যে এখানে পাওয়া রাম মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ প্রমাণ করে যে এক সময় সেখানে একটি বিশাল মন্দির ছিল।

এখানেই শেষ নয়, এই ক্যালেন্ডারে তাজমহলকে তেজো মহালয়া শিব মন্দির হিসেবে, কুতুব মিনারকে বিষ্ণু স্তম্ভ হিসেবে, কাশীর জ্ঞানব্যাপী মসজিদকে বিশ্বনাথ মন্দির হিসেবে ও মধ্যপ্রদেশের কমল মৌলা মসজিদকে ভোজশালা হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে।

এই ক্যালেন্ডার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহামণ্ডলেশ্বর ডঃ অন্নপূর্ণা ভারতী। তিনি এই ক্যালেন্ডারকে প্রশংসনীয় উদ্যোগ করে বর্ণনা করেন। হিন্দু মহাসভার জাতীয় সম্পাদক পূজা শকুন পাণ্ডে বলেন, “ভারতকে হিন্দু জাতি হিসেবে ঘোষণা করার জন্য এই ক্যালেন্ডার জারি করা হয়েছে। বিদেশি হানাদাররা দেশের হিন্দু ধর্মীয় স্থান লুট করেছে এবং ধর্মীয় স্থানগুলোর নাম পরিবর্তন করে মসজিদ করেছে। এখন হিন্দুদের ধর্মীয় স্থানগুলো তাদের ফিরিয়ে দেওয়া উচিত”।

Related Articles

Back to top button