দেশ

ফের উত্তপ্ত খোয়াই, তৃণমূলে যোগ দিতে গিয়ে আক্রান্ত বাম কর্মী, অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে

ফের ধুন্ধুমার ত্রিপুরায়। আক্রমণের অভিযোগে ফের সরব তৃণমূল শিবির। অভিযোগ, খোয়াইয়ে তৃণমূলে যোগ দিতে আসা বাম কর্মীদের উপর হামলা করা হয়। এমনকি কয়েকজনকে মারধর করা হয় বলেও অভিযোগ। এই হামলায় বিজেপিকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে তৃণমূল।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, এক বাম ছাত্র নেতা আক্রান্ত হয়েছেন। জানা গিয়েছে, গতকাল, রবিবার তিনি খোয়াইয়ে তৃণমূল নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এদিন গোটা দিন তিনি তৃণমূলের নেতাদের সঙ্গেই ছিলেন  বলে খবর। আজ, সোমবার দলবল নিয়ে তাঁর তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু এর আগেই ওই বাম নেতার উপর হামলা করা হয় বলে জানা গিয়েছে। আর এই ঘটনায় তৃণমূলকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে তৃণমূল। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ। আপাতত তিনি ত্রিপুরাতেই রয়েছেন। সেখানে সংগঠন বাড়ানোর কাজ চলছে। তাঁর দাবী, বিজেপি তৃণমূলকে ভয় পাচ্ছে, এই কারণে হামলা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ তুঙ্গে, ‘কারও স্বেচ্ছাচারিতা বরদাস্ত হবে না’, রবীন্দ্রনাথকে হুঁশিয়ারি পার্থর

শনিবার ত্রিপুরার আমবাসাতে আক্রান্ত হন দেবাংশু ভট্টাচার্য, জয়া দত্ত, সুদীপ রাহা। বিজেপির বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ আনেন দেবাংশুরা। এরপর রবিবার সকালে গ্রেফতার করা হয় দেবাংশু-জয়া-সুদীপ-সহ ১৪ জন তৃণমূল নেতাকে।

এই ঘটনায় গর্জে ওঠে ঘাসফুল শিবির। আক্রান্ত ও ধৃত নেতাদের পাশে দাঁড়াতে তড়িঘড়ি ত্রিপুরায় যান ব্রাত্য বসু, কুণাল ঘোষ ও দোলা সেন। ত্রিপুরাতে পৌঁছন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ত্রিপুরায় পৌঁছে খোয়াই থানায় পড়েছিলেন তিনি। এরপর অবশেষে ৫০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে ত্রিপুরা আদালত জামিন দেয় ১৪ জন তৃণমূল নেতাকে।

Related Articles

Back to top button