সব খবর সবার আগে।

লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করল দেশ, করোনার টিকাকরণে ১০০ কোটির মাইলফলক পার ভারতের

কথা রাখল কেন্দ্র। করোনার টিকাকরণে পার হল ১০০ কোটির মাইলফলক। আজ, বুধবার ঘড়িতে ১০টা বাজার আগেই এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করল দেশ। কেন্দ্রের তরফে আগেই ঘোষণা করা হয়েছিল যে চলতি বছরেই দেশের ১০০ কোটি মানুষ টিকা পাবে। তবে বছর শেষের অনেক আগেই সেই লক্ষ্য পূরণ করল কেন্দ্র।

নির্দিষ্ট সময়ের আগেই টিকা পেল ১০০ কোটি মানুষ। ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য সকল দেশবাসীকে এই খুশির খবর জানিয়েছেন ও অভিনন্দনও জানিয়েছেন এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণের জন্য।

আজ সকাল ৯টা ৪৮ মিনিটেই এই সুখবর দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য। টুইট করে তিনি লেখেন, “ভারতকে অভিনন্দন, আমাদের দূরদর্শী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বেই এই সাফল্য সম্ভব হল”। অন্যদিকে, নীতি আয়োগের সদস্য ডঃ ভিকে পালও বলেন, “দেশের সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মী ও মানুষকে অভিনন্দন। যে কোনও দেশের জন্যই ১০০ কোটি টিকাকরণের লক্ষ্য়মাত্রা পূরণ করা সাফল্যের বিষয়, তবে ভারতে মাত্র টিকাকরণের শুরুর ৯ মাসের মধ্যেই এই লক্ষ্য়মাত্রা পূরণ করা হয়েছে”।

তাঁর কথায়, “টিকাকরণের এই গতি ধরে রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দেশের ৭৫ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক এখনও অবধি করোনা টিকার প্রথম ডোজ় দেওয়া হয়েছে। কিন্তু একই সময়ে ২৫ শতাংশ প্রাপ্তয়স্ক এখনও ভ্য়াকসিন নেননি। এখনও অবধি যারা করোনা টিকা নেননি, তারাও যাতে টিকাকরণের জন্য এগিয়ে আসেন, সেই প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে”।

এদিকে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। তিনি টুইটে লেখেন, “ইতিহাস গড়ল ভারত। আমরা ভারতীয় বিজ্ঞান, উদ্যোগ ও ১৩০ কোটি জনগণের মিলিত প্রচেষ্টাতেই ভারত ১০০ কোটি করোনা টিকার মাইলফলক পার করল। আমাদের দেশের চিকিৎসক, নার্স ও সমস্ত সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের ধন্যবাদ, যারা এই লক্ষ্যপূরণে সাহায্য করেছেন”।

শুধু দেশই নয়, আন্তর্জাতিক মহল থেকেও এই গণটিকাকরণের জন্য শুভেচ্ছা বার্তা আসছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার রিজিওনাল ডিরেক্টর ডঃ পুনম ক্ষেত্রিপাল সিং এই বিষয়ে বলেন, “ভারতকে অনেক অভিনন্দন আরও একটি মাইলফলক পূরণ করার জন্য। ১০০ কোটির টিকাকরণের লক্ষ্যপূরণ করল দেশ”।

গতকাল, মঙ্গলবারই দেশে মোট টিকাপ্রাপকের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ৯৯ কোটিতে। এরপর থেকেই কেন্দ্র তো বটেই, দেশের মানুষও এই সংখ্যা ১০০ কোটি হওয়ার প্রমাদ্ম গুনছিল। অবশেষে আজ, ২১শে অক্টোবর সেই ১০০ কোটি টিকাকরণের মাইলফলক ছুঁল দেশ। মাত্র ২৭৯ দিনেই পূরণ হল লক্ষ্যমাত্রা। এবার পরবর্তী লক্ষ্য আগামী বছরের মধ্যেই দেশের প্রাপ্তবয়স্কদের সকলকে টিকা দেওয়া।

তবে এই পথটা খুব এক সহজ ছিল, তা নয়। দেশে একের পর এক করোনার ঢেউ এসেছে। কিন্তু এর মাঝেও থেমে থাকেনি টিকাকরণ কর্মসূচি। গত বছরের জুন-জুলাই মাসে যখন দেশ করোনার প্রথম ঢেউয়ের সঙ্গে লড়ছিল, সেই সময়ই ভারতে টিকাকরণের প্রস্তুতি শুরু হয়। আর বছর শেষেই মেলে দুটি টিকা, কোভিশিল্ড ও কো-ভ্যাক্সিন।

You might also like
Comments
Loading...