সব খবর সবার আগে।

ফের জিডিপি সঙ্কোচনের হার কমল দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেও, টেকনিক্যাল রিসেশনের মুখে ভারতীয় অর্থনীতি

গত সপ্তাহেই রিসেশনের কথা ঘোষণা করা হয়, তবে সরকারিভাবে কোনও কিছু ঘোষণা করা হয়নি। ফের এইমাসে জল্পনা করে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকেও দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার কমেছে। এর জেরেই অনেক বিশেষজ্ঞেরা মনে করছেন, ভারতীয় অর্থনীতি এখন আপাত মন্দার মধ্যেই চলছে। তবে গত ত্রৈমাসিকের চেয়ে এই ত্রৈমাসিকের সঙ্কোচনের হার একটু কম হওয়ায় সামান্য আশার আলো দেখা যাচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে।

গতকাল, শুক্রবার কেন্দ্রের থেকে জিডিপির তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে জানা গিয়েছে, ২০১৯-২০ অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ভারতের জিডিপি ছিল ৩৫.৮৪ লক্ষ কোটি টাকা। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে ২০২০-২১ আর্থিক বর্ষে তা হয়েছে ৩৩.১৪ লক্ষ কোটি টাকা। গত অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে জিডিপি ৪.৪ শতাংশ বৃদ্ধি হয়েছিল। কিন্তু এবছর তার থেকে ৭.৫ শতাংশ জিডিপ সংকুচিত হয়েছে। তবে এই আর্থিক বর্ষে প্রথম তিন মাস এপ্রিল থেকে জুন যে ২৩.৯ শতাংশ সঙ্কোচন হয়েছিল তার থেকে এই ত্রৈমাসিকে পরিস্থিতি অনেকটাই ভাল বলা যেতে পারে। উৎসবের মরশুমের কারণেই এই পরিস্থিতির খানিক উন্নতি হয়েছে বলে মনে করছেন আর্থিক বিশেষজ্ঞরা।

আবার ১৯৯৬ সালের পরে এই প্রথম ভারতীয় অর্থনীতিকে এত খারাপ অবস্থার মধ্যে দিয়ে যেতে হচ্ছে বলে বিদ্রূপ করেছেন অনেক বিশেষজ্ঞেরা। এই তথ্য প্রকাশের পর কেন্দ্রীয় শাসকদল ও প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে টুইট করেছেন রাহুল গান্ধী। তাঁর মতে, ভারতের এই দশার জন্য একমাত্র প্রধানমন্ত্রীই দায়ী।

তবে এদিকে, দেশের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা কৃষ্ণমুর্তি ভি সুব্রমনিয়ন জানিয়েছেন যে, ভারতের অর্থনীতি ভালোর দিকেই এগোচ্ছে। মার্চে অতিমারির কারণে জারি হওয়া লকডাউনের জেরে ২০২০-২০২১ অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিকে জিডিপিতে অনেকটাই প্রভাব পড়েছিল। কিন্তু, লকডাউন শিথিল হওয়ার পর আবার ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ভারতের অর্থনীতি। এর পরের ত্রৈমাসিকগুলিতে আর ভালো ফল হবে বলে আশা রাখছেন তিনি।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...