দেশ

পুরুষ বন্ধুর সামনেই গণধ’র্ষ’ণ নাবালিকাকে, বুলডোজার চালিয়ে অভিযুক্তদের বাড়ি গুঁড়িয়ে দিল বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ সরকার, বাংলায় কবে চালু হবে এই নীতি?

এবার নির্ভয়া কাণ্ডের ছায়া দেখা গেল মধ্যপ্রদেশে। পুরুষ বন্ধুর সামনেই গণধ’র্ষ’ণ করা হল এক কিশোরীকে। ৬ জন ধ’র্ষ’কের মধ্যে দু’জন নাবালক বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় তিনজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অবৈধ নির্মাণের অভিযোগ এনে ওই তিন অভিযুক্তের বাড়ি বুলডোজার চালিয়ে ভেঙে দিয়েছে মধ্যপ্রদেশ সরকার।

ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার মধ্যপ্রদেশের রেয়াতে। জানা গিয়েছে, মন্দিরে পুজো দিতে যাওয়ার জন্য শনিবার বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন ওই কিশোরী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন তাঁর পুরুষ বন্ধু। মন্দিরের সামনে দাঁড়িয়ে তারা কথা বলছিলেন দু’জনে। সেই সময় আচমকাই বাইকে করে হাজির হয় ৬ জন দুষ্কৃতী।

অভিযোগ, নাবালিকাকে তার পুরুষ বন্ধুর সামনেই গণধ’র্ষ’ণ করে ওই দুষ্কৃতীরা। ধ’র্ষ’ণের পর নির্যাতিতাকে মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। নির্যাতিতার মোবাইল এবং নুপুর কেড়ে নেওয়া হয়। এমনকি, ঘটনার কথা জানাজানি হলে থেকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় ওই দুষ্কৃতীরা। এরপর এলাকা ছেড়ে পালায় তারা।

এরপরই পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। ওই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৩৭৬(ডি), ৩৯৫, ৫০৬ এবং পকসো ধারায় মামলা রুজু হয়। রেয়া ডিস্ট্রিক্ট হেডকোয়ার্টার থেকে মাত্র ৭০ কিলোমিটার দূরে ঘটেছে এই ঘটনা। স্বাভাবিকভাবেই বেশ নড়েচড়ে বসে পুলিশ। গতকাল, রবিবারই গ্রেফতার করা হয় তিনজনকে। বাকিদের এখনও খোঁজ চলছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই ৩ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অবৈধ নির্মাণের অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের বাড়ি বুলডোজার চালিয়ে ভেঙে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। উত্তরপ্রদেশে এর আগে দেখা গিয়েছে যোগী সরকারের বুলডোজার অভিযান। এবার সেই পদ্ধতি অবলম্বন করতে দেখা গেল অন্য এক বিজেপি শাসিত রাজ্যেও। এর থেকে বাংলাবাসীর প্রশ্ন, পশ্চিমবঙ্গেও এমন নীতি কী আদৌ কখনও চালু হবে যেখানে অপরাধের জন্য উপযুক্ত শাস্তি পাবে অপরাধীরা?

Related Articles

Back to top button