সব খবর সবার আগে।

নাগাল্যান্ডে বন্ধ হল কুকুরের মাংস কেনাবেচা, সরকারের সিদ্ধান্তে খুশি সারমেয় প্রেমীরা

অবশেষে জয় পেলেন সারমেয় প্রেমীরা। মিজোরামের পর এবার কুকুরের মাংসের ব্যবসার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হল নাগাল্যান্ডে। সেইসঙ্গে রান্না করা কুকুরের মাংস এবং কাঁচা কুকুরের মাংস বিক্রি করার উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নাগাল্যান্ড সরকার। জানা গিয়েছে, কুকুরের মাংসের বাজারেও নিষেধাজ্ঞা চালু হবে।

রাজ্যের মুখ্যসচিব তেমজেন টয় আজ ট্যুইট করে এই খবর জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে তিনি লিখেছেন রাজ্য মন্ত্রীসভার এই বিচক্ষণতার সঙ্গে গৃহীত সিদ্ধান্তের প্রশংসা করছি।

নাগাল্যান্ড প্রশাসনের এই যুগান্তকারী পদক্ষেপের পেছনে রয়েছে অসংখ্য পশুপ্রেমী সংগঠন এবং সারমেয় প্রেমীদের দীর্ঘকালের লড়াই। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় নাগাল্যান্ডে কুকুর দের উপর অত্যাচার এর বিভিন্ন ছবি ভাইরাল হয় এবং সেখানে লেখা হয় যে তিন দিনের মধ্যে যদি ৫০ হাজার ইমেইল রাজ্যের মুখ্য সচিবের কাছে পৌঁছায় তবে তিনি ব্যাপারটি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। এই পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় গণহারে শেয়ার হয় এবং অনেক সেলিব্রিটিও এই পোস্ট শেয়ার করেন। মেইল করতে শুরু করেন সকলেই। এরপরেই এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন মুখ্যসচিব।

প্রসঙ্গত এই লড়াইয়ের পেছনে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছিল পশু অধিকার সংগঠনগুলির জোট ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান অ্যানিম্যাল প্রটেকশন অর্গানাইজেশনস (ফিয়াপো)। তারা রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করেছিল, কঠোর ভাবে রাজ্যে পশুকল্যাণ সংক্রান্ত আইন চালু হোক, পাশাপাশি কুকুরের মাংসের বিক্রি, চোরাচালান ও তা খাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হোক। ফিয়াপো আরও জানিয়েছে, পশু কল্যাণ বিষয়ক বিধি-আইন সম্পর্কে আরও সচেতনতার প্রসার ঘটাতে সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে খুশি মনে সহযোগিতা করবে তাঁরা। তাঁদের আশা, রাজ্য সরকার তাদের প্রয়াসের পাশাপাশি জোরকদমে শিক্ষামূলক প্রচারও চালিয়ে বলবে, কীভাবে কুকুরের মাংসের চাহিদার ফলে সারমেয়দের ক্ষতি হচ্ছে, নিষেধাজ্ঞা মেনে নেওয়ার ক্ষেত্রে জনমত তৈরিতে সাহায্য করবে।

মিজোরাম সরকার গত মার্চেই কুকুরের মাংস বিক্রি, বাণিজ্যিক লেনজেন, আমদানি ও রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এবার একই পথে হাঁটল নাগাল্যান্ড। বড় জয় পেলেন সারমেয় প্রেমীরা।

Comments
Loading...
Share