দেশ

‘দীর্ঘ দিন পর স্কুলে ফিরতে পেরে বেশ খুশি ছাত্ররা’, শিক্ষক পর্বের অনুষ্ঠানে মন্তব্য প্রধানমন্ত্রীর

আজ, মঙ্গলবার শিক্ষক পর্বের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন তিনি বলেন যে দেশের নানান সরকারি স্কুল্গুলির শিক্ষার মান বাড়ানোর জন্য নানান বেসরকারি ক্ষেত্রগুলিকেও এগিয়ে আসতে হবে। তিনি এও জানান যে গত ৬-৭ বছরে জন ভাগিদারের শক্তি দেশের উন্নয়নে যেভাবে কাজ করেছে, তা আগে কখনও ভাবাও যায়নি।

এদিনের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের শিক্ষকরা তাঁদের কাজকে কেবল পেশাদার দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখেন না। আসলে শিক্ষকতা তাঁদের কাছে একটি মানবিক অনুভূতি, একটি পবিত্র নৈতিক কর্তব্য। সেই কারণেই আমাদের শিক্ষক ও পড়ুয়াদের মধ্যে কোনও পেশাদার সম্পর্ক নেই। তাঁদের সম্পর্ক পারিবারিক। আর এই সম্পর্ক সারা জীবনের”।

এরইসঙ্গে এদিন ‘নিষ্ঠা’ প্রশিক্ষণ শিবিরের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে আমাদের দেশের শিক্ষকদের নতুন করে কারিগরি শিক্ষার প্রয়োজন। তাঁর কথায়, “এই দ্রুত বদলাতে থাকা সময়ে দাঁড়িয়ে আমাদের শিক্ষকদেরও নতুন সিস্টেম ও টেকনিকের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। ‘নিষ্ঠা’ প্রশিক্ষণ শিবিরের মাধ্যমে শিক্ষকরা এই পরিবর্তনগুলির বিষয়ে প্রশিক্ষিত হবেন”। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে উঠে আসে ‘টকিং বুক’ ও ‘অডিও বুক’-এর মতো নানান নতুন প্রযুক্তির কথাও।

আরও পড়ুন- কোনও আফগানকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অনুমতি ছাড়া বিতাড়িত করা যাবে না ভারত থেকে, নির্দেশ কেন্দ্রের

এই সঙ্গে এদিনের এই শিক্ষক পর্ব অনুষ্ঠানে মোদী বলেন, “স্কুলে ফিরতে পেরে খুশি ছাত্ররা। শিক্ষকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। আজ দেশ নতুন সংকল্প নিচ্ছে। গত ৬-৭ বছরে জন ভাগিদারের শক্তিতে ভারতে এমন ধরনের কাজ হয়েছে যার কল্পনাও আগে মানুষ করতে পারত না। সেটা স্বচ্ছতা হোক, গরিবের ঘরে গ্যাসের লাইন পৌঁছে দেওয়া হোক, গরিবদের ডিজিটাল লেনদেন শেখানো হোক, প্রতিটি ক্ষেত্রে ভারতের প্রগতিতে জন ভাগিদার অত্যন্তু গুরুত্বপূর্ণ”।

আগামী বছর স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্ণ হচ্ছে। একথা মাথায় রেখে সদ্য়ই শেষ হওয়া অলিম্পিক ও প্যারিলিম্পিকে অংশ নেওয়া ভারতীয় প্রতিযোগীদের প্রধানমন্ত্রী আর্জি জানান যাতে তারা দেশের অন্তত ৭৫টি স্কুলে অংশ নেন। মোদী বলেন, “আমি তাঁদের কাছে আরজি জানাচ্ছি ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’-এ অংশ নিতে তাঁরা যেন অন্তত ৭৫টি স্কুলে যান”।

Related Articles

Back to top button