সব খবর সবার আগে।

বিহার ভোট: মহাজোট লোভীর মত বিহারের দিকে তাকিয়ে রয়েছে, তীব্র ভাষায় বিরোধীদের আক্রমণ করলেন মোদী

বিহার বিধানসভা নির্বাচনে আর পাঁচ দিন বাকি তাই মরিয়া হয়ে নেমেছে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি। এবার আসলে নামলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কংগ্রেস আরজেডি ও বামেদের মহাজোটকে চাঁচাছোলা ভাষায় আজ প্রথম জনসভায় আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী।

“এক সময় যারা বিহার কে শাসন করেছিল তারাই আবার লোভী চোখে তাকিয়ে আছে এই উন্নয়নশীল রাজ্যের দিকে। কিন্তু বিহার বাসি আপনাদের ভুললে চলবে না যে কারা আপনাদের পিছিয়ে দিয়েছিল এবং কাদের সময় রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে ছিল। কাদের সময় বিহার প্রশাসন দুর্নীতিতে ভরে উঠেছিল।” ঠিক এই ভাষাতেই মহাজোটকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী। তবে সভার শুরুতে সদ্যপ্রয়াত রামবিলাস পাসোয়ান এর প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণভাবে চিরাগ পাসওয়ানের বিরুদ্ধে একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি।

আজ সকাল ১১টা নাগাদ বিহারের সাসারাম এর বাইয়াদা ময়দানে নীতীশ কুমারের সঙ্গে যৌথ নির্বাচনী সভা করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রথমেই কভিদ সংক্রান্ত সচেতনতা প্রচারের পর আস্তে আস্তে উঠে এল কৃষি আইন, ৩৭০ ধারা, গালওয়ান উপত্যকা ইত্যাদি প্রসঙ্গ।

বিহারের এবার ভোটের অন্যতম প্রধান বিষয় পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যা। বিরোধীদের অভিযোগ অনুযায়ী শ্রমিকদের সসম্মানে ঘরে ফেরেনি বিজেপি তথা এনডিএ জোট। অন্যদিকে নীতীশ কুমারের শিবির প্রচার করছে তারা সাফল্যের সঙ্গে পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফিরিয়ে এনেছে।
প্রধানমন্ত্রী তাই আজ বলেছেন যে, তাঁর সরকার দরিদ্রদের জন্য নিখরচায় রেশন নিশ্চিত করেছে।নীতীশ কুমারের উন্নয়ন যজ্ঞে সামিল হওয়ার জন্যই তার সমর্থনে পাশে এসে দাঁড়িয়েছে বিজেপি।

এছাড়াও কৃষি ঋণ নিয়ে প্রসঙ্গ উঠতেই নরেন্দ্র মোদী জানিয়ে দেন যে তারা মধ্যস্থতাকারীদের নির্মূল করতেই এই কৃষি বিল পাশ করিয়েছে কিন্তু বিরোধীরা সব সময় মধ্যস্থতাকারীদের সহায়তা করার চেষ্টা করে তাই তারা কৃষি আইনের বিরোধিতা করছে।

গত জুন মাসে গালওয়ান উপত্যকায় চীন সেনার সঙ্গে রক্তাক্ত সংঘর্ষে প্রাণ গিয়েছিল বিহার রেজিমেন্টের কমান্ডার সহ বেশ কয়েকজন সেনা সদস্যের। সেই প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন যে বিহারের সন্তানরা প্রাণ দিয়েছেন ভারতমাতার মাথা উঁচু রাখতে। তাদেরকে তিনি নতমস্তকে শ্রদ্ধা জানান। সবশেষে তিনি দৃঢ় ভাষায় জানিয়ে যান যে বিহারকে সত্যি সত্যি যদি আত্মনির্ভর করে তুলতে হয় তাহলে তার জন্য দরকার এনডিএর নেতৃত্ব।

You might also like
Comments
Loading...