দেশ

‘দেশের দরিদ্র, প্রান্তিক এবং নিম্নবিত্তদের জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত’, রাষ্ট্রপতি পদে দ্রৌপদী মুর্মু শপথগ্রহণের পর বললেন প্রধানমন্ত্রী

বিরোধী জোটের প্রার্থী যশবন্ত সিনহাকে বিপুল ভোটে হারিয়ে দেশের পঞ্চদশ রাষ্ট্রপতি হয়েছেন এনডিএ প্রার্থী দ্রৌপদী। তাঁর এই জিত যে এক ঐতিহাসিক ঘটনা তা বলাই বাহুল্য। শাসক শিবির তো বটেই, বিরোধী শিবিরেরও অনেকেরই ভোট পেয়েছেন দ্রৌপদী মুর্মু। আজ, সোমবার ছিল তাঁর রাষ্ট্রপতি পদে শপথগ্রহণের দিন।

এদিন ইতিহাস গড়ে ভারতের প্রথম আদিবাসী রাষ্ট্রপতি পদে শপথগ্রহণ করেন দ্রৌপদী মুর্মু। আজ সংসদ ভবনের সেন্ট্রাল হলে সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে শপথগ্রহণ করেন দ্রৌপদী মুর্মু। ভারতের প্রধান বিচারপতি এনভি রমনা তাঁকে শপথবাক্য পাঠ করান।

এদিন দ্রৌপদী মুর্মুর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানকে ঐতিহাসিক মুহূর্ত আখ্যা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেব্দ্র মোদী বলেন, “দেশের দরিদ্র, প্রান্তিক এবং নিম্নবিত্তদের জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত”। এদিন টুইট করে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, “তিনি ভারতের কৃতিত্বের উপর জোর দিয়েছেন এবং তিনি এমন একটি সময়ে ভবিষ্যতবাদী দৃষ্টিভঙ্গি উপস্থাপন করলেন যখন ভারত আজাদি কা অমৃত মহোৎসব পালন করছে”।

অন্য একটি টুইটে প্রধানমন্ত্রী লিখলেন, “ভারতের রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নিয়েছেন দ্রুপদী মুর্মুজি। সমগ্র জাতি শ্রীমতি দ্রৌপদীকে গর্বের সাথে দেখেছে আজ। তাঁর রাষ্ট্রপতি পদে শপথগ্রহণ করার ঘটনা ভারতের জন্য… বিশেষ করে দেশের দরিদ্র, প্রান্তিক এবং নিম্নবিত্তদের জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। রাষ্ট্রপতি হিসেবে তাঁর মেয়াদ যাতে সফল হয়, এর জন্য শুভ কামনা করি আমি”।

উল্লেখ্য, এদিন রাষ্ট্রপতি পদে শপথগ্রহণের সঙ্গে সঙ্গে ভারতের ১৫তম রাষ্ট্রপতি হন দ্রৌপদী মুর্মু। তিনি সর্বোচ্চ সাংবিধানিক পদে অধিষ্ঠিত প্রথম আদিবাসী মহিলা রাষ্ট্রপতি ও ভারতের দ্বিতীয় মহিলা রাষ্ট্রপতি। এর পাশাপাশি দ্রৌপদী মুর্মু হলেন স্বাধীন ভারত জন্ম নেওয়া প্রথম রাষ্ট্রপতি।

Related Articles

Back to top button