সব খবর সবার আগে।

নতুন শিক্ষা ব্যবস্থায় জোর দিয়েছি চাকরি দাতাদের উপর: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

দেশে বাড়তে চলেছে চাকরিদাতার সংখ্যা। নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি ব্যবস্থায় দেশে চাকরি প্রার্থীর বদলে চাকরি দেওয়ার লোকের সংখ্যা বাড়বে বলে অভিমত জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নতুন শিক্ষা ব্যবস্থায় চালু হচ্ছে ৫+৩+৩+৪ প্যাটার্ন। পড়ুয়ারা নিজের পছন্দ মতো বিষয় বেছে নিতে পারবে ফলে পড়াশোনায় আগ্রহ বাড়বে তাদের এমনটাই মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার স্মার্ট ইন্ডিয়া হেকাথেলন-এ প্রধানমন্ত্রী বলেন, নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি ব্যবস্থায় কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে চাকরিদাতার ওপর বেশি জোর দেওয়া হয়েছে। সরকারের উদ্দেশ্য হলো ৫০% এনরোলমেন্ট ধরে রাখা। একজন পড়ুয়া তার ইচ্ছামত বিষয় পছন্দ করতে পারবে এবং সে একাধিক বিষয় নিয়ে পড়তে পারবে।

প্রধানমন্ত্রীর মতে, এখন পরিবর্তনশীল যুগ। দুনিয়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের কেউ বদলাতে হবে নইলে আমরাই পিছিয়ে পড়বো। আর দেশের যুব সমাজ হলো দেশের ভবিষ্যৎ। আমরা স্কুল ব্যাগের বোঝা কমাতে চাইছি। বহু বছর ধরে শিক্ষা ব্যবস্থার কারণে পড়ুয়াদের ওপরে বোঝা তৈরি হচ্ছিল। নতুন শিক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে পড়ুাদের ও তাদের ভবিষ্যেতের দিকে তাকিয়ে।

প্রসঙ্গত নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতি অনুসারে, কেন্দ্রের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণিতে আর নতুন করে বোর্ডের পরীক্ষা নেওয়া হবে না। তার পরিবর্তে আনা হচ্ছে ৫+৩+৩+৪ পদ্ধতি। এখানে প্রাথমিককেও আনা হচ্ছে স্কুলের আওতায়। ক্লাস ওয়ান ও ক্লাস টু-কে রাখা হচ্ছে প্রি-প্রাইমারির মধ্যে। এটিকে বলা হচ্ছে ফাউন্ডেশন কোর্স।

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী একটি ধাপ যার নাম দেওয়া হচ্ছে সেকেন্ডারি স্টেজ। যেখানে দশম দ্বাদশ শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষা আলাদা করে হবে না। এরপরে থাকবে চার বছরের স্নাতক কোর্স। যেখানে তিন বছর স্নাতক করার পরই সুযোগ মিলবে পরবর্তী ডিগ্রি কোর্স করার। এছাড়াও এমফিল বলে কিছু থাকছে না নতুন জাতীয় শিক্ষানীতিতে।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Leave a Comment