সব খবর সবার আগে।

করদানে কমছে জটিলতা, নতুন প্ল্যাটফর্ম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

যারা সঠিক সময়ে কর দেন তাদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে মিলল সুখবর। এবার দেশের সৎ করদাতাদের জন্য নতুন প্ল্যাটফর্ম লঞ্চ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরো জানিয়েছেন যে কেন্দ্রীয় সরকার করদান ব্যবস্থায় যে সংস্কার আনতে চলেছে তাকে এই প্ল্যাটফর্ম অন্যতম এক মাইলফলক হয়ে রইল।

প্রধানমন্ত্রীর কথায় বিগত ছয়-সাত বছর দেশে করদাতার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু ১৩০ কোটির দেশে মাত্র দেড় কোটি মানুষ কর দেন। যা খুবই নগণ্য। যারা কর দিতে সক্ষম তাদের দেওয়া উচিত, তাদের আত্মসমীক্ষার প্রয়োজন আছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়াও যারা নিয়মমতো কর দেন তাদেরকে কেন্দ্রীয় সরকার সম্মান জানাবে। কেন্দ্রের তরফ থেকে জানানো হচ্ছে যে, করদানে জটিলতা দূর করাই কেন্দ্রের লক্ষ্য। সম্প্রতি জানা গিয়েছে যে কর জমা করার ক্ষেত্রে স্ক্রুটিনি কোন নির্দিষ্ট আধিকারিক দ্বারা হবে না। এর ফলে গোটা ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা বজায় থাকবে। আগামী মাসের ২৫ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে ফেসলেস অ্যাপিল সার্ভিস।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যে এই ব্যবস্থার ফলে মিনিমাম গভর্মেন্ট, ম্যাক্সিমাম গভর্নেন্স বিষয়টি আরো স্পষ্ট হবে। তিনি দেশের নতুন রীতিনীতি সাধারণ মানুষের জন্য সরল পদ্ধতিতে উপস্থাপন করায় বিশ্বাসী। ‌করদাতাদের স্বার্থ সুরক্ষিত করাই যে সরকারের লক্ষ্য, একথা স্পষ্ট জানিয়েছেন মোদী। ভারতের এই সংস্কারমূলক পদক্ষেপ দেখে বিদেশ থেকে বিনিয়োগ আসছে। এমনকি বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতেও দেশে রেকর্ড বিদেশি বিনিয়োগ হয়েছে। স্বাধীনতার পর করদান বিষয়ে সংস্কার খুব ধীরগতিতে হয়েছে। অল্প কয়েকজন মানুষের জন্য দেশের একটা বড় অংশ বিশেষ করে যুবসমাজকে ভুগতে হয়েছে বছরের পর বছর।

যদিও মোদী সরকারের আমলে শেষ কয়েক বছর আয়কর দপ্তর এর বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য সংস্কার হয়েছে যার মধ্যে রয়েছে চালু কোম্পানিগুলির ক্ষেত্রে কর্পোরেট কর ২২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২০ শতাংশ করা হয়েছে ও নতুন কোম্পানির ক্ষেত্রে এই কর ১৫ শতাংশ করা হয়েছে। এছাড়াও ডিভিডেন্ড ট্যাক্স বাতিল করা হয়েছে। এছাড়াও ডিরেক্ট ট্যাক্স সংক্রান্ত আইন কানুন সরলীকরণের কাজ শুরু হতে চলেছে। এই পদক্ষেপের ফলে উপকৃত হবেন দেশের সাধারণ মানুষ।

You might also like
Leave a Comment