দেশ

লকডাউনের মধ্যেই ধাক্কা তেলের বাজারে! লিটারে ৫ টাকা বাড়তে পারে পেট্রোল-ডিজেলের দাম!

করোনার জেরে লকডাউন। আর তার জেরে মহামন্দায় ভারতীয় অর্থনীতি। সব গেল’র রবের মধ্যেই খুব শিগগির এক ধাক্কায় অনেকটা বাড়তে পারে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম। এক্ষেত্রে সব মিলিয়ে প্রতি লিটার পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম ৪ থেকে ৫ টাকা পর্যন্ত বাড়াতে পারে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানিগুলি। সম্প্রতি হ‌ওয়া এক বৈঠকে এই বিষয়ে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা আইএএনএস।

এখন পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী তেল উৎপাদন সংস্থাগুলির কাছে পেট্রোল-ডিজেলের উৎপাদন ও বিক্রয়ের মধ্যে ব্যবধান লিটারে প্রায় ৪-৫ টাকায় পৌঁছেছে। কিন্তু লকডাউনের পরপরই দৈনিক তেলের মূল্য নির্ধারণ বন্ধ রেখেছে তাঁরা। অর্থাৎ এই ক’দিনে তেলের দাম বাড়েনি বা কমেনি। সব ঠিকঠাক থাকলে জুন মাস থেকে ফের দৈনন্দিন ভিত্তিতে জ্বালানির দাম নির্ধারণ শুরু করতে চলেছে তেল কোম্পানিগুলি। সে ক্ষেত্রে ধীরে ধীরে দাম বাড়ানোর পক্ষে রয়েছে তাঁরা। কিছু দিনের মধ্যেই প্রতি লিটার পেট্রোল ও ডিজেলের দাম বর্তমান দামের থেকে ৪ থেকে ৫ টাকা বেড়ে যেতে পারে বলে সূত্র উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে ১লা জুন থেকে যদি পঞ্চম দফার লকডাউন শুরু হয়, তাও কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমতিক্রমে দৈনন্দিন ভিত্তিতে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম নির্ধারণের পক্ষে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানিগুলি।

এই মুহূর্তে আন্তর্জাতিক তেলের বাজারে অস্থিরতা অব্যাহত। গত মাসের তুলনায় মে মাসে অপরিশোধিত তেলের দাম ৫০ শতাংশের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। এই মুহূর্তে বিশ্ব বাজারে ব্যারেল প্রতি অপরিশোধিত তেলের দর ৩০ মার্কিন ডলার। এবং দাম ক্রমশ বাড়ছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে পেট্রোল-ডিজেল বিক্রি করে আগামীদিনে তেল কোম্পানিগুলির লোকসান হবে। করোনা মহামারি এবং লকডাউনের জেরে এমনিতে জ্বালানির বিক্রি তলানিতে এসে ঠেকেছে।

এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে পেট্রোল ও ডিজেলের মূল‍্যবৃদ্ধিই আপাত একমাত্র বিকল্প পথ বলে মনে করেছে তেল কোম্পানিগুলি।

Related Articles

Back to top button