দেশ

উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আবহেই ধনখড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসেনজিতের, তবে কী এবার বুম্বাদাও পা বাড়াচ্ছেন রাজনীতিতে? তুমুল জল্পনা

আজ, শনিবার উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচন। এই নির্বাচনে এনডিএ-র প্রার্থী হলেন জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar)। তবে এরই মাঝে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করছে একটি ছবি। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে ধনখড়ের সঙ্গে টলি ইন্ডাস্ট্রির প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Prasenjit Chatterjee)। হাসিমুখের ফ্রেমে এই দু’জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে দেখে শুরু হয়েছে জল্পনা।

দীর্ঘদিন ধরে টলি ইন্ডাস্ট্রিতে রাজ করছেন প্রসেনজিৎ। তবে এখনও পর্যন্ত কখনও রাজনীতির ময়দানে দেখা মেলেনি তাঁর। কিন্তু গতকাল, শুক্রবার জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে তাঁর এই সাক্ষাৎ তাঁর রাজনীতিতে যোগ দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বৈ কী! কেন হঠাৎ দিল্লি গিয়ে বুম্বাদা দেখা করলেন ধনখড়ের সঙ্গে? এ নিয়ে শুরু হয়েছে নানান জল্পনা। এর মাঝে বুম্বাদার রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা উঠে এসেছে।

তবে সূত্রের খবর, এর পেছনে রাজনৈতিক কোনও কারণ নেই। স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষ্যে দেশের নানান ক্ষেত্রে বিশিষ্টজনেদের নিয়ে একটি কমিটি তৈরির ব্যাপারে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তারই অঙ্গ হিসাবে এবার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন জগদীপ ধনখড়। বাংলা থেকে তাঁকে রীতিমতো আমন্ত্রণ করে নিয়ে আসা হয়েছিল দিল্লিতে।

তবে প্রসঙ্গ যাই হোক না কেন, এই সাক্ষাৎ নিয়ে কিন্তু রাজনৈতিক মহলে বেশ গুঞ্জন শুরু হয়েছে। অনেকের মনেই প্রশ্ন উঠেছে যে তাহলে কী এবার মিঠুন চক্রবর্তীর মতো প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও রাজনীতিতে আসতে চলেছেন? যদিও নানান মহলের দাবী, এই সাক্ষাতের সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। কমিটি তৈরির জন্যই এটি একটি সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎ মাত্র।

বলে রাখি, কিছু মাস আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও নবান্নে দেখা করতে গিয়েছিলেন বুম্বাদা। সেই সময়ও তাঁর রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার প্রসঙ্গ উঠে আসে। কিন্তু সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে প্রসেনজিৎ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন যে সেটি ছিল সৌজন্য সাক্ষাৎ। আর এবারও ধনখড়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পর সেই একই জল্পনা মাথাচাড়া দিয়েছে ফের একবার।

Related Articles

Back to top button